প্রবল অস্বস্তিতে পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় তৃণমূল

Last Updated: Thursday, May 2, 2013 - 15:46

সেই তালিকায় নবতম সংযোজন তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়। সারদার ব্রান্ড অ্যাম্বাসাডর ছিলেন তিনি। সবমিলিয়ে সারদা কেলেঙ্কারি নিয়ে প্রবল চাপে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। অস্বস্তি কাটাতে এবার বিরোধাদের পাল্টা আক্রমণের স্ট্রাটেজি নিল তৃণমূল কংগ্রেস। প্রথম টার্গেট প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য।
সারদা কেলেঙ্কারিতে পুলিসি তদন্ত যত এগোচ্ছে ততই স্পষ্ট হচ্ছে শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীদের সঙ্গে সারদার কর্তাব্যক্তিদের যোগাসাজশের ছবিটা। প্রবল চাপ কাটাতে এবার বিরোধীদের পাল্টা আক্রমণের পথে তৃণমূল কংগ্রেস। প্রথমেই নিশানায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধেদেব ভট্টাচার্য।     
সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেন গ্রেফতার হওয়ার পরই তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতামন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর যোগাযোগের বিষয়টি সামনে আসে। সিবিআইকে লেখা সুদীপ্ত সেনের চিঠিতে নাম ছিল দুই তৃণমূল সাংসদের। পরে পুলিসি জেরায় আরও কয়েকজন নেতামন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের বিষয় জানান সারদা কর্তা। পরিবহণ মন্ত্রী মদন মিত্রের সারদার একাধিক অনুষ্ঠানে হাজির থাকার ফুটেজ হাতে আসে ২৪ ঘণ্টার।
  
ভুঁইফোঁড় আর্থিক সংস্থার বাড়বাড়ন্তের জন্য সিপিআইএমকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন পরিবহণ মন্ত্রী মদন মিত্র। সারদা কেলেঙ্কারিতে ক্রমেই বাড়ছে জনরোষ। লক্ষ লক্ষ প্রতারিত আমনতকারীদের টাকা ফিরিয়ে দিতে পাঁচশো কোটি টাকার তহবিল গড়ার কথা বললেও তার পুরো অর্থের সংস্থান কোথা থেকে তার জবাব নেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।
চিটফান্ড মোকাবিলায় নয়া বিল বিধানসভায় পাশ হলেও, তার সাংবিধানিক বৈধতা নিয়ে সংশয়ে সরকার। সবমিলিয়ে এই মুহূর্তে চরম অস্বস্তিতে রাজ্য। নজর ঘোরাতে এবার তাই বিরোধীদেরই পাল্টা আক্রমণের স্ট্রাটেজি নিয়েছে শাসকদল। এমনই মনে করেছে রাজনৈতিক মহল।



First Published: Thursday, May 2, 2013 - 15:46


comments powered by Disqus