কলকাতা ফিরলেন মুখ্যমন্ত্রী, আজও অব্যাহত তৃণমূল তাণ্ডব

গতকাল দিল্লিতে এসএফআইয়ের বিক্ষোভের পরই হুমকি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,দিল্লি থেকে কলকাতা কাল দেখবে। দেখব কে বাঁচায়। নেতৃত্বের ইঙ্গিত বুঝতে দেরি হয়নি। তাই গতকাল সন্ধ্যা নামতে না নামতেই রাজ্যজুড়ে শুরু হয়ে যায় প্রতিবাদের নামে তৃণমূল কর্মীদের তাণ্ডব। যা আজও অব্যাহত।

Updated: Apr 10, 2013, 01:41 PM IST

গতকাল দিল্লিতে এসএফআইয়ের বিক্ষোভের পরই হুমকি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,দিল্লি থেকে কলকাতা কাল দেখবে। দেখব কে বাঁচায়। নেতৃত্বের ইঙ্গিত বুঝতে দেরি হয়নি। তাই গতকাল সন্ধ্যা নামতে না নামতেই রাজ্যজুড়ে শুরু হয়ে যায় প্রতিবাদের নামে তৃণমূল কর্মীদের তাণ্ডব। যা আজও অব্যাহত। 
এসএফআইয়ের বিক্ষোভের প্রতিবাদে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা হামলা চালাল বেলেঘাটায় বেশ কয়েকটি সিপিআইএমের দলীয় কার্যালয়ে। সরকার বাজার আঞ্চলিক কমিটি, বেলেঘাটা পূর্ব আঞ্চলিক কমিটি সহ বেশ কয়েকটি দলীয় কার্যালয় পুরোপুরি তছনছ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে ফুলবাগান সিপিআইএম পার্টি অফিসে। আজ সিপিআইএম নেতা মানব মুখোপাধ্যায়,ও অনাদি সাহু বেশ কয়েকটি দলীয় কার্যালয় অফিস ঘুরে দেখেন। ঘটনায় পুলিসের কাছে লিখিত অভিযোগও জানানো হয়েছে সিপিআইএমের তরফে। সিপিআইএমের অভিযোগ পুলিস তৃণমূলের শাখা সংগঠন হিসেবে কাজ করছে।
দিল্লির ঘটনার প্রতিবাদে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ভাঙড়ের শ্যামনগর মোড় অবরোধ করল তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা। আজ সকাল সোওয়া নটা থেকে প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক আরাবুল ইসলামের নেতৃত্বে অবরোধ শুরু হয়েছে রাজারহাট-হাড়োয়া রোডে। অবরোধের জেরে যান চলাচল স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। চরম বিপাকে পড়েছেন নিত্যযাত্রীরা।   
মুখ্যমন্ত্রী সহ চার মন্ত্রীকে হেনস্থার ঘটনার পর, গতকাল সন্ধ্যায় যাদবপুরে সিপিআইএমের একাধিক কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, এলাকার সিপিআইএম কর্মীদের বাড়িতেও ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে। হামলার মুখে পড়েন এলাকার প্রবীণ সিপিআইএম কর্মীরাও।   
দিল্লিতে এসএফআইয়ের বিক্ষোভের প্রতিবাদে আসানসোলে আক্রান্ত হলেন সিপিআইএম নেতা কর্মীরা। রানিগঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান অনুপ মিত্র ও দুজন সিপিআইএম কর্মীকে মারধর করা হয়েছে। ঘটনার পরই তৃণমূলের বিরুদ্ধে রানিগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে সিপিআইএমের তরফে। বারাবনিতেও বেশ কয়েকজন সিপিআইএম কর্মীকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে আসানসোলের বোগরা সিটু অফিসেও। সেখানে পার্টি অফিসে আগুন লাগিয়ে দেয় তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।