তৃণমূলের দুই বিধায়কের প্রকাশ্য কাজিয়া, বিবাদ দত্তাবাদে

দত্তাবাদে মেট্রো প্রকল্পের পুনর্বাসনকে ঘিরে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর কাজিয়া প্রকাশ্যে এল। পুনর্বাসন নিয়ে আজ দত্তাবাদে বাইপাসের ওপর সভা করছিলেন বিধাননগর পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। সভা চলাকালীন সেখানে উপস্থিত হন বিধায়ক সুজিত বসু।

Updated: Aug 23, 2013, 03:01 PM IST

এক বিধায়কের অনুগামীদের পথ অবরোধ তুলতে গেলেন আরেক বিধায়ক। আর দুতরফের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল গোটা এলাকা। সল্টলেকের দত্তাবাদে তৃণমূল বিধায়ক সুজিত বসু ও সব্যসাচী দত্তের অনুগামীদের প্রকাশ্য সংঘর্ষে অস্বস্তিতে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।
তৃণমূল ভবন থেকে মাত্র কয়েক কিলোমিটার দূরে সল্টলেকের দত্তাবাদে দুই বিধায়কের অনুগামীদের সম্মুখ সমর।
ইস্টওয়েস্ট মেট্রো সম্প্রসারণের জন্য দত্তাবাদ এলাকায় জমি জরিপ করতে যান মেট্রো আধিকারিকরা। তা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ালে ঘটনাস্থলে পৌঁছন নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তিনি বৈঠক করার সময়েই তাঁর অনুগামীদের একাংশ পথ অবরোধ করে। সল্টলেকে একটি অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে সেই অবরোধের মুখে পড়েন বিধাননগরের বিধায়ক সুজিত বসু। তিনি অবরোধ তুলতে গেলে তাঁর অনুগামীদের সঙ্গে সব্যসাচী দত্তের অনুগামীদের সংঘর্ষ বেধে যায়।
পরে স্থানীয় পার্টি অফিসে গিয়ে মতান্তর মিটিয়ে নেন যুযুধান দুই নেতা। স্থানীয় মানুষকেও আশ্বস্ত করেন তাঁরা। তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বিধাননগরের বিধায়ক সুজিত বসু ও নিউ টাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত বিপরীত মেরুর বাসিন্দা।
তাই দত্তাবাদের ঘটনা চিন্তায় রাখছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বকে। কামাখ্যা মন্দিরে পুজো দিতে গুয়াহাটি যাওয়া মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও শুক্রবারের সংঘর্ষের খবর পৌঁছেছে। আগামী ২৬ এবং ২৭ অগাস্ট টাউন হলে দলের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই দত্তাবাদের বিষয়টিও আলোচনায় উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে।