তৃণমূলের মে দিবসে মালিকদের কণ্ঠস্বরের প্রতিধ্বনী, প্রতিবাদে শ্রমিকরা

Last Updated: Wednesday, May 2, 2012 - 18:16

মে দিবসের অনুষ্ঠানে শ্রমমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু এবং আইএনটিটিইউসি নেত্রী দোলা সেনের বক্তব্য ঘিরে রাজ্য রাজনীতিতে বিতর্ক তুঙ্গে। চলতি শ্রমিক আন্দোলনকে দায়িত্বজ্ঞানহীন, নেতিবাচক আখ্যা দিয়ে দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন শ্রমমন্ত্রী। মে দিবসে শ্রমমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু এবং আইএনটিটিইউসি নেত্রী দোলা সেন বলেন, শ্রমিকদের শুধুমাত্র নিজেদের দাবিদাওয়ার কথা ভাবলেই চলবে না। শিল্পের স্বার্থ, উত্‍পাদন বৃদ্ধির মত বিষয়েও তাঁদের ভাবতে হবে। তাঁদের এই বক্তব্য ঘিরেই তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে শ্রমিক মহলে। বামপন্থী শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের মতে, মে দিবসের মঞ্চে দাঁড়িয়ে শ্রমমন্ত্রী ও তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের নেত্রী আসলে মালিক পক্ষের হয়েই সওয়াল করেছেন।  শ্রমমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসুর বক্তব্যকে শ্রমিক স্বার্থবিরোধী বলে বর্ণনা করেছেন বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃত্ব। সকলেরই প্রায় একবাক্যে অভিযোগ, শ্রমমন্ত্রী যা বলেছেন তা আসলে মালিকপক্ষের কন্ঠস্বরের প্রতিধ্বনি।
সিপিআইয়ের জেলা সম্পাদক মঞ্জুকুমার মজুমদার বলেন, "মালিকের দালাল ছাড়া কেউ একথা বলতে পারে না।" আরএসপি নেতা মনোজ ভট্টাচার্য বলেন, "এদের কোনও অতীত নেই। ভবিষ্যত্‍ আছে কি না, ভবিষ্যত্‍ই বলবে।"
একই ক্ষোভ ধরা পড়েছে কংগ্রেস ও বিজেপির শ্রমিক সংগঠনগুলির নেতৃত্বের বক্তব্যও। আইএনটিটিইউসি নেতা রমেন পাণ্ডে বলেন, "এরা কতটা শ্রমিক দরদী, তা ২৮ ফেব্রুয়ারির বন্‍‍ধের দিন প্রমাণ করে দিয়েছে।"
 
শ্রমমন্ত্রী এবং দোলা সেনের বক্তব্য আলোড়ন তৈরি করেছে শ্রমিক মহলেও। শ্রমমন্ত্রীর এই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বন্ধ ডানলপের শ্রমিকেরা। তাঁদের বক্তব্য, ডানলপের শ্রমিকেরা কাজ করতে চান। কিন্তু দীর্ঘদিন বিভিন্ন বিভাগে কাজ দিতে পারেনি মালিকপক্ষ। বকেয়া রয়েছে তিন মাসের বেতনও। শ্রমিকদের অভিযোগ, ডানলপে উত্‍পাদনের ক্ষেত্রে শ্রমিকেরা তাঁদের ভূমিকা পালনে তত্‍পর। কিন্তু কারখানা চালু রাখার বিষয়ে প্রয়োজনীয় ভূমিকা পালন করেনি মালিকপক্ষ। ডানলপ কারখানা খোলা এবং শ্রমিকদের বকেয়া মেটানোর বিষয়ে শ্রমমন্ত্রীকে উদ্যোগ নিন, এমনই দাবি জানিয়েছেন শ্রমিকেরা। 
 



First Published: Monday, May 7, 2012 - 19:33


comments powered by Disqus