হ্যাপি সিং খুনের ঘটনায় ওয়ার্ডেন রাকেশ বিশ্বাসকে সাসপেন্ড

Last Updated: Tuesday, May 6, 2014 - 18:07

খাদিম কর্তা অপহরণ কাণ্ডে অন্যতম প্রধান অভিযুক্ত হ্যাপি সিং খুনের ঘটনায় ওয়ার্ডেন রাকেশ বিশ্বাসকে সাসপেন্ড করল কারা কর্তৃপক্ষ। শোকজ করা হয়েছে হেড ওয়ার্ডেন ইনচার্জ মহম্মদ ইশক আলিকে। কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে এই দুজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ । সোমবারই প্রেসিডেন্সি জেলের মধ্যে খুন হন হ্যাপি ওরফে হরপ্রীত সিং। এই ঘটনায় সিআইডি তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

খাদিম কর্তা অপহরণ কাণ্ডে অন্যতম প্রধান অভিযুক্ত হ্যাপি সিং খুনের ঘটনায় বিভাগীয় তদন্তে উঠে এসেছে কর্তব্যে গাফিলতির বিষয়টি। মঙ্গলবার ডিআইজি ওয়েলফেয়ার সুদীপ্ত চক্রবর্তী বিভাগীয় তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছেন আই জি কারা অধীর শর্মার কাছে। ওই রিপোর্ট স্বরাষ্ট্রসচিবের কাছে পাঠিয়ে দেন আই জি কারা। তারপরই ওয়ার্ডেন রাকেশ বিশ্বাসকে সাসপেন্ড ও হেড ওয়ার্ডেন ইনচার্জ মহম্মদ ইশক আলিকে শোকজের সিদ্ধান্ত নেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

জেলের কয়েদিদের সেলের বাইরে থাকার একটি নির্দিষ্ট সময় রয়েছে। হাই রিসক কয়েদিদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম আরও কড়া। হ্যাপি সিং হাই রিসক কয়েদি হওয়া সত্ত্বেও তার রেকর্ড ভাল ছিল। সেকারণে সকাল সাড়ে ছটা থেকে রাত আটটা সাড়ে আটটা পর্যন্ত সেলের বাইরে থাকতে পারত হ্যাপি । অন্যান্য কয়েদিদের সঙ্গে হাই রিসক কয়েদিদের উপর বিশেষ নজরদারির দায়িত্ব ছিল ওয়ার্ডেন রাকেশ বিশ্বাসের।

তিনি সেই দায়িত্ব পালন করেননি বলে উঠে এসেছে বিভাগীয় তদন্তে। ফলে সাসপেন্ড করা হয়েছে তাকে। এক থেকে ৪৪ নম্বর সেলের সামগ্রিক দায়িত্ব ছিল হেড ওয়ার্ডেন ইনচার্জ মহম্মদ ইশক আলির ওপরে। কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ শোকজ করা হয়েছে তাকেও। হ্যাপি সিং হত্যার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকালে প্রেসিডেন্সি জেলের সামনে বিক্ষোভ দেখায় মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর। জেল সুপারের কাছে একটি স্মারকলিপিও জমা দেন সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

সূত্রের খবর হ্যাপি সিং খুনে অভিযুক্ত নিজামুদ্দিনকে সজল বারুইয়ের সেলে সরানো হয়েছে। জেলের মধ্যেই নিজামউদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মঙ্গলবার ব্যাঙ্কশাল কোর্টে আবেদন জানায় হেস্টিংস থানা। সেই আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত।



First Published: Tuesday, May 6, 2014 - 18:07


comments powered by Disqus