জলে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে অদিতির

জলে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে অদিতির

জলে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে অদিতির ঋত্বিক ঘটকের নাতনি অদিতি ঘটকের  জলে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে। এমনটাই উঠে এল ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে। ময়নাতদন্তে অদিতির শরীরে মাদক বা অ্যালকোহলের কোনও অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলে দাবি পুলিসের। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সোনারপুর থানার পুলিস।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান বেপরোয়া ড্রাইভিংয়ের জেরেই দুর্ঘটনা ঘটেছে। বেপরোয়া ড্রাইভিংয়ের জন্যই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাড়ি গিয়ে পড়ে গোয়ালবাটি খালে। গাড়ি চালাচ্ছিলেন অদিতি ঘটকের বন্ধু জ্ঞানজিত পটের। তাঁর ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিস। জ্ঞানজিত মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিল কিনা তাও তদন্ত করে দেখছে পুলিস। জ্ঞানজিতের বিরুদ্ধে বেপরোয়া গাড়ি চালানোর অভিযোগ কতটা সত্যি তাও দেখা হবে তদন্ত করে। অভিযোগের সত্যতা প্রমানিত হলে তাঁর বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু করবে পুলিস। লাইসেন্স না থাকলে মোটর ভেইক্যালস অ্যাক্ট অনুযায়ী জ্ঞানজিতের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিস।

গত শুক্রবার সোনারপুরের গোয়ালবাটি খাল থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার হওয়ার পর রবিবার কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় অদিতি ঘটকের। গত শুক্রবার একটি রেস্তোরাঁ থেকে জ্ঞানজিত পটের ও ৩ বান্ধবীর সঙ্গে একটি গাড়িতে ওঠেন অদিতি। ওই দিনই রাতে সোনারপুরের গোয়ালবাটি খাল থেকে অচৈতন্য অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করা হয়। ভর্তি করা হয় বেসরকারি হাসপাতালে। প্রথমে পরিবারের তরফে দাবি করা হয়, অদিতিকে খুন করা হয়েছে।


First Published: Monday, December 03, 2012, 16:13


comments powered by Disqus