মহাকরণে স্থানান্তরে প্রমাদ গুণছেন কর্মীরা

Last Updated: Thursday, September 19, 2013 - 22:49

মহাকরণ স্থানান্তরের সঙ্গে সঙ্গেই কর্মীদের পুনর্বিন্যাসের কাজে হাত দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিছু স্থায়ী পদ অবলুপ্ত করা হচ্ছে। তুলনীয় কাজের জন্য চুক্তিভিত্তিক লোক নিয়োগ হচ্ছে। গত দুমাসে এই সংক্রান্ত একাধিক নির্দেশিকায় আতঙ্কে ভুগছেন কর্মীদের একাংশ। তাঁদের আশঙ্কা, শেষপর্যন্ত কর্মী ছাঁটায়েই পথে যাবে রাজ্য। প্রতিবাদে আজ মহাকরণে অবস্থানে বসেন কর্মীরা।  একাধিক দফতরে স্থায়ীপদ উদ্বৃত্ত ও বিলোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। স্থানাভাবের কারণে কর্মীদের অতিরিক্ত ঘোষণা করে অন্য দফতরেও পাঠানো হচ্ছে। 
কলকাতা পে এন্ড অ্যাকাউন্টস ও পি ডব্লিউডি ডিরেক্টরেট একই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আচমকা এমন সিদ্ধান্তে স্থায়ী পদ উদ্ধৃত্ত ও বিলোপের আশঙ্কায় ভুগছেন কর্মীরা।
গতমাসে পূর্তদফতরে নির্দেশিকায় ২৫৫ টি ট্রেসার, ২৫২টি টাইপিস্ট ও ৬৮টি লোয়ার ডিভিশন ক্লার্কের পদ অবলুপ্তির কথা ঘোষণা করা হয়েছে
 
ইউডি ও এলডি ক্লার্কের অনুপাত সমান করার লক্ষ্যে ৬৮টি ইউডি ক্লার্কের পদ অবলুপ্ত করা হয়েছে
 
একইসঙ্গে, বিভিন্ন দফতরে কম্পিউচার অপারেটেরর ৫৪২টি অস্থায়ী পদের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে
 
সর্বোচ্চ মাসিক ১১,০০০ হাজার টাকা চুক্তিতে ১ বছরের জন্য এঁদের নিয়োগ করা হবে
টাইপিস্টের স্থায়ী পদ বিলোপ করে কম্পিউটার অপারেটরের পদ তৈরি করছে রাজ্য সরকার। প্রশাসনিক দিক থেকে এই সিদ্ধান্ত যুগপোযোগী হলেও, রাজ্য সরকারের স্থায়ী কর্মীর সংখ্যা একফলে হ্রাস পেল। পূর্ত দফতরের ৩৮৩ জন অবসর প্রাপ্ত সাব অ্যাসিস্টান্ট ইঞ্জিনিয়ারকেও রাজ্য সরকার চুক্তি ভিত্তিতে নিয়োগ করছে। বুধবার রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের সচিব ইন্দিবর পাণ্ডে এক নির্দেশিকা জারি করেন। 74/SDM/2013 নং-য়ের ওই নির্দেশিকা য় বলা হয়েছে হাওড়াতে এইচআরবিসি ভবনে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের যথেষ্ট জায়গা নেই। তাই মহাকরণের সবকর্মীকে নতুন সচিবালয়ে নিয়ে যাওয়া হবে না। ৮ জন কর্মীকে আপাতত স্বরাষ্ট্র (কর্মীবর্গ) দফতরে রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। পরে তাদের অন্যদফতরে পাঠানো হতে পারে। সরকারের তুঘলকি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার মহাকরণের পিছনে অবস্থানে বসেন সরকারি কর্মীরা।
 



First Published: Thursday, September 19, 2013 - 22:49


comments powered by Disqus