ডেনমার্কের এক জলাভূমি থেকে মিলল লৌহযুগের মানব শরীর

ডেনমার্কের সিল্কবর্গ প্রদেশের এক জলাভুমি থেকে খোঁজ মেলে লৌহ যুগের পম্পেই। জলাভুমির কাছে স্থানীয় দুই বালক মাটি খুঁড়তে খুড়তে সন্ধান পায় মিশমিশে এক কালো মূর্তির। কিন্তু তাদের অজান্তেই ইতিহাসে আর একটি পাতার রহস্য উত্ঘাটন হয়ে যায়।

Updated: Aug 2, 2014, 12:14 PM IST
ডেনমার্কের এক জলাভূমি থেকে মিলল লৌহযুগের মানব শরীর
Werner Forman—UIG/Getty Images

Denmark: ডেনমার্কের সিল্কবর্গ প্রদেশের এক জলাভূমি থেকে খোঁজ মেলে লৌহ যুগের পম্পেই। জলাভূমির কাছে স্থানীয় দুই বালক মাটি খুঁড়তে খুড়তে সন্ধান পায় মিশমিশে এক কালো মূর্তির। কিন্তু তাদের অজান্তেই ইতিহাসে আর একটি পাতার রহস্য উত্ঘাটন হয়ে যায়।

কালো মূর্তিটি সম্ভবত খ্রীষ্টপূর্ব ৩৭৫ থেকে ২১০ বছর আগের মানব দেহ। সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় পম্পেইকে। শরীরের কোনও অংশ পচন ধরেনি। প্রস্তর যুগের এইরকম নিদর্শন পেয়ে নিতান্তই অবাক হচ্ছে প্রত্নতত্ত্ববিদরা। পম্পের মাথায় মেষ চামড়ার টুপি, মুখে হাল্কা দাঁড়ি, শক্ত পেশিবহুল মুখ। গলায় দড়ির ফাঁস লাগানো রয়েছে। দড়িটি কোনও মেশিনে তৈরি করা নয়, হাতে বানানো।

তবে প্রত্নতত্ত্ববিদরা বিস্ময় হচ্ছেন কীভাবে লৌহ যুগের মানবদেহ সংরক্ষিত রয়েছে এতদিন ধরে। বিজ্ঞানীদের মতে, ওই জলাভুমির আশপাশে একটা আশ্চর্য রাসায়নিক বিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। জলাূমির মাটির ভিতর অক্সিজেনের অভাব, তাপমাত্রা খুবই কম এবং  আম্লিক পরিবেশের জন্য ব্যাকটেরিয়া মুক্ত। এইকারণে ৫ফুট ৩ ইঞ্চির দেহটি এখনও অক্ষত রয়েছে। তবে টোল্যান্ড ম্যান নামে পরিচিত এই মানুষটিকে খুন অথবা অপরাধী হওয়ার কারণে মৃত্যু হয়নি। তিনি ঈশ্বরের কাছে সমর্পণ করে মৃত্যু বরণ করেছেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁর বয়স আনুমানিক ৪০ বছর হবে।