`মিথ্যুক আর প্রতারকরা অনেক বেশি সৃজনশীল হয়!`

Last Updated: Saturday, February 22, 2014 - 18:00

মিথ্যুক আর প্রতারকরা সৎ লোকজনের তুলনায় অনেক বেশি সৃজনশীল হয়। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই অবাক করে দেওয়া তথ্য।

কোনও একটি নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে মিথ্যা কথা বলে অন্যদের কাছে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলা একধরণের সৃজনশীলতারই প্রকাশ। দাবি করেছেন গবেষকরা। তাঁদের মতে
যারা সাধারণত মিথ্যে বলে তাঁরা সমাজের বাধা ধরার নিয়ম নীতির বিশেষ তোয়াক্কা করেন না। হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের গবেষক ফ্রান্সেকা জিনোর মতে ``সাধারণ ভাবে আমরা বলে থাকি ভাঙার জন্যই বিভিন্ন নিয়ম নীতি গুলোর জন্ম হয়েছে। এই প্রবাদ বাক্যটির সঙ্গেই সৃজনশীল কর্মকাণ্ড ও অসৎ ব্যবহারের গভীর সম্পর্ক আছে। সৃজনশীলতা ও অসততা উভয়য়ের সঙ্গেই জড়িয়ে আছে নিয়ম ভাঙা।``

অসততা ও সৃজনশীলতা মধ্যে সম্পর্ক খুঁজে বার করতে জিনো ও তাঁর সহকারীরা বিবিধ পরীক্ষা নিরীক্ষা করেছেন। কোনও কোনও সময় লোকজনকে উৎসাহ জুগিয়েছেন যাতে তারা অন্যদের ঠকান।প্রথম পরীক্ষায় কিছু ব্যক্তিকে বিবিধ নম্বর ম্যাট্রিক্সের সিরিজ দেওয়া হয়েছিল। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের বলা হয়েছিল ২টো নম্বর খুঁজে বার করতে যা প্রতি ম্যাট্রিক্সে ১০ অবধি যোগ করতে পারে।

তাদেরকে বলা হয়েছিল যতগুলি ম্যাট্রিক্সে সমাধান করতে পারবেন তার ভিত্তিতে তাদের প্রতিদান দেওয়া হবে। এছাড়াও তাদের যত নম্বর তারা ঠিক করবেন তার ভিত্তিতে সেলফ রিপোর্ট তৈরি করতে বলা হয়েছিল।

এই সেটআপে প্রতি অংশগ্রহণকারীরই সুযোগ ছিল সহজেই তাদের নিজ নিজ পারফরম্যান্স ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে অন্যদের কাছে বলার। কিন্তু তারা জানতেন না গবেষকরা তাদের গতিবিধির উপর লুকিয়ে নজর রাখছেন।

প্রথমে পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের তিনটি শব্দ দেওয়া হয়েছিল (যেমন-sore, shoulder, sweat) তাদের বলা বলা হয়েছিল ওই তিনটি শব্দের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত ওই সিরিজের চতুর্থ শব্দটি (যেমন- cold) খুঁজে বার করতে।

তিনটি শব্দের সঙ্গে তথাকথিত দূরবর্তী সম্পর্কযুক্ত শব্দকে চিহিন্ত করা মানুষের সৃজনশীলমননের পরীক্ষা করার খুব সাধারণ ও চলতি পদ্ধতি।

জিনো ও তাঁর সহযোগীরা দেখলেন ৫৯% অংশগ্রহণকারীরা ম্যাট্রিক্সে তাদের পারফরম্যান্স ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে দিয়েছেন। এবং এই ৫৯%-এর অধিকাংশই তিনটি শব্দের সঙ্গে দূরবর্তী সম্পর্কযুক্ত বিভিন্ন চতুর্থ শব্দের যোগান দিয়েছেন। যারা সৎ থেকেছেন ক্ষেত্রে সৃজনশীল মননের প্রকাশ ঘটেছে অপেক্ষাকৃত বেশ কম।

এছাড়াও বেশ কিছু পরীক্ষা করে গবেষকরা দেখেছেন প্রতিবারেই মিথ্যাবাদীরা অনেকবেশী সৃজনশীল মননের পরিচয় দিয়েছেন।



First Published: Saturday, February 22, 2014 - 18:00


comments powered by Disqus