কই মাছে হর-গৌরী

এক অঙ্গে বহু রূপ যদি সম্ভব তাহলে এক পদে ডবল স্বাদ হবে না কেন? বাঙালির হেঁসেল যতদিন বহাল তবিয়তে টিকে আছে ততদিন এক পদে ভিন্ন স্বাদের অভাব হবে না। একদিকে তেলে ঝালের ডুয়েট অন্যদিকে তেঁতুল আর চিনির সহবাস।

Updated: Apr 14, 2013, 06:04 PM IST

এক অঙ্গে বহু রূপ যদি সম্ভব তাহলে এক পদে ডবল স্বাদ হবে না কেন? বাঙালির হেঁসেল যতদিন বহাল তবিয়তে টিকে আছে ততদিন এক পদে ভিন্ন স্বাদের অভাব হবে না। একদিকে তেলে ঝালের ডুয়েট অন্যদিকে তেঁতুল আর চিনির সহবাস। দুই বিপরীত মেরুর একে অন্যকে বিন্দুমাত্র বিরক্ত না করে অনন্য স্বাদের সন্ধান কই মাছের হর-গৌরী। বছরের শুরুটা টক-ঝাল-মিষ্টির মৌতাতে মেতে উঠুক।
কী কী লাগবে
কই মাছ
সর্ষে বাটা
জিরে বাটা
কাঁচালঙ্কা বাটা
কাঁচা লঙ্কা গুঁড়ো
গুঁড়ো হলুদ
রসুন বাটা
পেঁয়াজ বাটা
তেঁতুরের ঘন রস
চিনি
সর্ষের তেল
নুন
জল সামান্য
কীভাবে বানাবেন
কই মাছ কেটে পরিষ্কার করে ধুয়ে হলুদ, নুন ও রসুন বাটা দিয়ে মেখে ১০ মিনিট ম্যারিনেড করে রাখুন। ফ্রাইং প্যানে তেল দিয়ে তাতে কই মাছগুলো লাল করে ভেজে তুলুন। ফ্রাইং প্যানে ১ চা চামচ তেল দিয়ে তাতে সর্ষে বাটা, কাঁচালঙ্কা বাটা, সামান্য হলুদ গুঁড়ো ও নুন দিয়ে কষে নিন। অল্প জল দিন। জল ফুটে গেলে ভাজা কই মাছগুলো দিয়ে ঢেকে দিন। কোনও অবস্থায় মাছ উল্টে দেবেন না। এক পিঠ ভাজা ভাজা হলে প্লেটে নামিয়ে রাখুন। আবার ফ্রাই প্যানে ১ চামচ তেল দিন, তাতে পেঁয়াজ বাটা, লঙ্কা গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো, নুন ও সামান্য জল দিয়ে কষান। কষা হলে তেঁতুলের রস ও চিনি দিন। এবার মাছগুলোর উল্টো পিঠে তেঁতুলের রস দিয়ে ঢেকে দিন। মাছ মাখা মাখা হলে নামিয়ে ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন মজাদার কই মাছের হর-গৌরী।

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close