সাগ গোস্ত

Last Updated: Thursday, September 27, 2012 - 13:18

খাসির মাংস বলতেই বাঙালির ধারণা তেল গড়ানো কষা মাংস। শাকপাতার সঙ্গে তাকে মেশানোর কথা ভাবতেই পারেন না অনেকেই। কিন্তু সেই শাকপাতা আর খাসির সংমিশ্রণেই তৈরি করা যায় সাগ গোস্তের মতো লোভনীয়, সুস্বাদু খাবার। মূলত পঞ্জাবি মুলুকের খাবার হলেও বাঙালি হেঁসেলেও ধীরে ধীরে জায়গা করে নিচ্ছে সাগ গোস্ত। ভাত, রুটি, পরোটা, পোলাও যেকোনও কিছুর সঙ্গেই দিব্যি খাওয়া যায় সাগ গোস্ত। দুপুরে, রাত্রে যেকোনও সময়ই খাওয়া যায়।
কী কী লাগবে
খাসির মাংস:- ১ কেজি (মাঝারি সাইজে টুকরো করা)
পালং শাক:- ৩ আঁটি পেঁয়াজ:- ৪টে মাঝারি সাইজের (কুচোনো)
টমেটো:- ২টো মাঝারি সাইজের
টকদই:- ১০০ গ্রাম
কাঁচালঙ্কা:- ৬-৮টা
আদা:- ১-২ টুকরো
রসুন:- ১০-১২ কোয়া
লবঙ্গ:- ৪-৫টা
দারচিনি:- ১টা
বড় এলাচ:- ২টো
তেজপাতা:- ২-৩টে
জিরে:- আধ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো:-আড়াই চা চামচ
সাদা তেল:- ৫-৬ টেবিল চামচ
নুন:- স্বাদ মতো
জল:- ৩-৪ কাপ
কীভাবে বানাবেন
মাংসের টুকরো পরিষ্কার করে নিন। কাঁচালঙ্কা, আদা, রসুন একসঙ্গে বেটে টকদই ও ধনেগুঁড়ো দিয়ে ম্যারিনেড করে ফ্রিজে ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা রেখে দিন। পালং শাক ধুয়ে কুচিয়ে নিন। গরম জলে এক মিনিট ভাপিয়ে নিয়ে জল ঝরিয়ে গ্রাইন্ডারে পেস্ট করে নিন অথবা বেটে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে জিরে ফোড়ন দিন। জিরে ফুঁটলে তেজপাতা, লবঙ্গ, এলাচ দিন। পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজতে থাকুন। পেঁয়াজ সোনালি হয়ে এলে ম্যারিনেড করা মাংস, নুন দিয়ে ঢিমে আঁচে চাপা দিয়ে রেখে দিন। মাংস নরম হয়ে জল ছাড়তে থাকলে টমেটো কুচি দিয়ে আবার চাপা দিয়ে রাখুন। প্রয়োজন হলে জল দেবেন। টমেটো নরম হয়ে এলে বাটা পালং দিন। যতক্ষণ না মাংস, পালং নরম হয়ে মিশে যাচ্ছে ঢিমে আঁচে কষতে থাকুন। হয়ে গেলে নামিয়ে নিয়ে পছন্দ মতো গার্নিশ করে নিন।
পরোটা, জিরা রাইস বা সাদা ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।



First Published: Thursday, September 27, 2012 - 17:08


comments powered by Disqus