১৮ দফা শর্ত দিয়ে সোনিয়া রাজনাথকে চিঠি কেজরিওয়ালের

The 18 issues pertaining to the common man raised in Aam Aadmi Party chief Arvind Kejriwal`s letter to the Congress and the BJP chiefs includes:

Updated: Dec 14, 2013, 09:43 PM IST

দিল্লিতে সরকার গঠন নিয়ে নাটকীয় টানাপোড়েন অব্যাহত। সরকার গড়ার বিষয়ে সিদ্ধান্তে আসার জন্য কংগ্রেস এবং বিজেপির ওপর শর্ত চাপাল আমআদমি পার্টি। সেইমতো ১৮ দফা শর্ত সম্বলিত চিঠি পাঠানো হয়েছে কংগ্রেস ও বিজেপি শিবিরে। কেজরিওয়ালদের এই চালে মিশ্র প্রতিক্রিয়া উঠে এসেছে দুই শিবির থেকে।

একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না মেলায় দিল্লি বিধানসভায় সরকার গঠনে রাজি নয় বিজেপি। আমআদমি পার্টিকে সরকার গঠনের জন্য বাইরে থেকে সমর্থন দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তারা। আমআদমি পার্টিকে নিঃশর্ত সমর্থন দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে কংগ্রেসও। সরকার গঠন ইস্যুতে শনিবার কংগ্রেস ও বিজেপির কোর্টে পাল্টা বল ঠেলল আমআদমি পার্টি। সরকার গঠনের সিদ্ধান্তে আসার জন্য কংগ্রেস ও বিজেপির ওপর ১৮ দফা শর্ত চাপিয়েছেন কেজরিওয়াল। কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও বিজেপি সভাপতি রাজনাথ সিংকে ওই চিঠি দেওয়া হয়েছে।

একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় দিল্লিতে সরকার গঠনে রাজি নয় বিজেপি। একই অবস্থান আমআদমি পার্টিরও। কিন্তু প্রথম ভোটে এত ভাল ফল করা সত্ত্বেও, কেজরিওয়ালরা সরকার গড়তে রাজি না হওয়ায় আপকে নিশানা করেছে কংগ্রেস-বিজেপি দুই শিবির।ভোটের আগে দিল্লির জনতাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত করার ওপর আমআদমি পার্টি গুরুত্ব দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করে তারা। কিন্তু কেজরিওয়ালের আঠেরো দফা শর্ত সম্বলিত পত্রাঘাত কংগ্রেস-বিজেপিকে অনেকটাই ব্যাকফুটে ঠেলে দিল।

সোনিয়া গান্ধী এবং রাজনাথ সিংকে লেখা চিঠিতে আমআদমি পার্টির তরফে যেসব শর্ত তুলে ধরা হয়েছে, তাতে সবচেয়ে গুরুত্ব পেয়েছে কংগ্রেস ও বিজেপি জমানায় বিভিন্ন দুর্নীতির তদন্তের বিষয়টি। একই সঙ্গে জনলোকপাল বিল পাস, দিল্লিকে পূর্ণাঙ্গ রাজ্যের মর্যাদা দেওয়া, রাজধানীতে অভিজাত সংস্কৃতির অবসানের দাবি জানানো হয়েছে। এবিষয়ে সতর্ক প্রতিক্রিয়া কংগ্রেসের।

যদিও শর্ত আরোপের ঘটনায় কেজরিওয়ালদের কড়া সমালোচনা করেছে বিজেপি। দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্টি হিসেবে শনিবার কেজরিওয়ালদের ডেকে পাঠিয়েছিলেন লেফটেন্যান্ট গভর্নর নাজিব জঙ্গ। কেজরিওয়ালদের বক্তব্য শোনার পর দিল্লিতে সরকার গঠন নিয়ে আশার আলো দেখছেন না তিনি। তাই রাষ্ট্রপতির কাছে রিপোর্ট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লেফটেনান্ট গভর্নর। রিপোর্টে কী লিখবেন নাজিব জঙ্গ? দিল্লির তখতে রাষ্ট্রপতি শাসনের আবেদন জানাবেন তিনি? রাজধানী জুড়ে এখন সেটাই সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।