উত্তরভারতে ঠাণ্ডার বলি ২৪৯

কনকনে শীতে আরও ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে উত্তরভারতে। যার মধ্যে উত্তরপ্রদেশেই প্রাণ হারিয়েছেন ১৬ জন। উত্তরাখণ্ডে প্রাণ হারিয়েছেন ৭ জন। এর ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৪৯। আবহাওয়া দফতর থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গতকাল লখনউ ছিল উত্তরপ্রদেশের শীতলতম শহর।

Updated: Jan 11, 2013, 10:14 AM IST

কনকনে শীতে আরও ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে উত্তরভারতে। যার মধ্যে উত্তরপ্রদেশেই প্রাণ হারিয়েছেন ১৬ জন। উত্তরাখণ্ডে প্রাণ হারিয়েছেন ৭ জন। এর ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৪৯। আবহাওয়া দফতর থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গতকাল লখনউ ছিল উত্তরপ্রদেশের শীতলতম শহর। পারদ নেমে গিয়েছিল শুন্য দশমিক পাঁচ ডিগ্রিতে। স্বাভাবিকের চেয়ে ছয় ডিগ্রি কম। এছাড়া খেরি, সুলতানপুর এবং গোরখপুরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও ছিল দুয়ের নিচে।
দেরাদুন, মুক্তেশ্বর, তেহরি, পন্তনগর, এবং নৈনিতালে পারদ নিম্নমুখী হলেও, উত্তরাখণ্ডের অন্যান্য শহরে তাপমাত্রা ছিল পাঁচের উপরে। রাজনৈতিক সঙ্কট চললেও, ঝাড়খণ্ডের সামগ্রিক তাপমাত্রা কিন্তু ঠাণ্ডাই। গতকাল রাঁচীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল আট ডিগ্রি। তবে রাজধানী সংলগ্ন কাঙ্কে শহরে পারদ নেমে গিয়েছিল তিনে। পালামৌ এবং জামশেদপুরেও পারদ ছিল পাঁচের আশেপাশে।
উত্তরপ্রদেশের সঙ্গে কনকনে শীতে কাঁপছে ওড়িশাও। গতকাল কন্ধমল জেলায় পারদ নেমে গিয়েছিল শূন্য দশমিক পাঁচে। বারিপাদায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পাঁচ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি। আর কাশ্মীরে সবচেয়ে ঠাণ্ডা ছিল লাদাখ উপত্যকা। পারদ নেমে গিয়েছিল মাইনাস আঠেরো ডিগ্রিতে। লে শহরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ষোলো দশমিক চার।