দিল্লি কাণ্ডের পরবর্তী শুনানি ক্যামেরার সামনে, এজলাসে নিষিদ্ধ সংবাদমাধ্যম

দিল্লি কাণ্ডের পরবর্তী শুনানি ক্যামেরার সামনে, এজলাসে নিষিদ্ধ সংবাদমাধ্যম

দিল্লি কাণ্ডের পরবর্তী শুনানি ক্যামেরার সামনে, এজলাসে নিষিদ্ধ সংবাদমাধ্যমদিল্লি গণধর্ষণ এবং খুনের মামলাটির পরবর্তী সব শুনানিই পুরোটাই ক্যামেরার সামনে হবে। আজ সাকেতের জেলা আদালতে এই মামলার প্রথম দিনে এমনি নির্দেশ দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট নম্রিতা আগরওয়াল। তার সঙ্গে সঙ্গেই মামলা চলাকালীন কোন সংবাদমাধ্যমের এজলাসের মধ্যে প্রবেশ নিষিদ্ধ করলেন তিনি।

আজ শুনানি শুরু হওয়ার অনেক আগে থেকেই এজলাস চত্বরে ব্যাপক ভিড় জমা হয়। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা ছাড়াও সেখানে এই মামলার সঙ্গে সম্পর্কহীন আইনজীবি সহ সাধারণ মানুষ জমা হন। ম্যাজিস্ট্রেট জানিয়ে দেন যতক্ষণ না পর্যন্ত এই ভিড় সরছে তাঁর পক্ষে মামলা শুরু করা সম্ভব নয়। অতিরিক্ত ভিড়ের জন্য পুলিস আজ পাঁচ অভিযুক্তকে কোর্টে পেশ করতেই পারেনি।

মামলা চলাকালীন যাতে নিরাপত্তা কোনরকম বিঘ্নিত না হয় তাই চরম গোপনীয়তা অবলম্বন করা হয়েছে। সাকেট কোর্টের তরফ থেকে বলা হয়েছে অনুমতি ছাড়া মামলা চলাকালীন এই মামলা সংক্রান্ত কোন কাগজপত্র প্রকাশ্যে আনা যাবে না।


মেয়ের মৃত্যুর পর দিল্লির গণধর্ষণকাণ্ডে নিহত তরুণীর পরিবার এখন তাঁদের গ্রামের বাড়িতে। ঘটনায় ছ'জন অভিযুক্তের মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছেন তরুণীর বাবা।

অভিযুক্তদের শাস্তির প্রতিবাদে গত ১৪ দিন ধরে অনশনরত রাজেশ গাংওয়ারকে রবিবার সন্ধ্যায় রাম মনোহর লোহিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ২৪ ডিসেম্বর, দিল্লির যন্তর মন্তরে অনশনে বসেন উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা রাজেশ গাংওয়ার এবং বাবু সিং। বাবু সিং এখনও অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন।

দিল্লিকাণ্ডে প্রতিবাদ অব্যাহত। রবিবার হায়দরাবাদ এবং সেকেন্দ্রাবাদে ধর্ষণকাণ্ডের প্রতিবাদে মোমবাতি মিছিল করেন মহিলারা। বেঙ্গালুরুতেও প্রতিবাদে সামিল হন অসংখ্য মানুষ।







First Published: Monday, January 07, 2013, 15:46


comments powered by Disqus