অ্যাসিড কিনতে গেলে এখন লাগবে পরিচয়পত্র

খুচরো বাজারে অ্যাসিড বিক্রি নিয়ন্ত্রণে নতুন নির্দেশিকা জারি করল সুপ্রিমকোর্ট। অ্যাসিড বিক্রি করতে গেলে এবার থেকে সরকারের কাছ থেকে নির্দিষ্ট অনুমতিপত্র ও আইডেন্টি কার্ড জোগাড় করতে হবে। শুধু তাই নয় এই নির্দেশিকা অনুযায়ী অ্যাসিড আক্রান্ত কোনও ব্যক্তিকে সংশ্লিষ্ট সরকারের পক্ষ থেকে তিন লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। যার মধ্যে এক লক্ষ টাকা দিতে হবে আক্রান্ত হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে। এর সঙ্গেই রাজ্যগুলিকে খুচরো অ্যাসিড ও অনান্য বিষাক্ত বস্তু বিক্রির উপর তিন মাসের মধ্যে নির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।

Updated: Jul 18, 2013, 03:09 PM IST

খুচরো বাজারে অ্যাসিড বিক্রি নিয়ন্ত্রণে নতুন নির্দেশিকা জারি করল সুপ্রিমকোর্ট। অ্যাসিড বিক্রি করতে গেলে এবার থেকে সরকারের কাছ থেকে নির্দিষ্ট অনুমতিপত্র ও আইডেন্টি কার্ড জোগাড় করতে হবে। শুধু তাই নয় এই নির্দেশিকা অনুযায়ী অ্যাসিড আক্রান্ত কোনও ব্যক্তিকে সংশ্লিষ্ট সরকারের পক্ষ থেকে তিন লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। যার মধ্যে এক লক্ষ টাকা দিতে হবে আক্রান্ত হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে। এর সঙ্গেই রাজ্যগুলিকে খুচরো অ্যাসিড ও অনান্য বিষাক্ত বস্তু বিক্রির উপর তিন মাসের মধ্যে নির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।
মেডিক্যাল ও অনান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিকে এবার থেকে এক সঙ্গে অনেক অ্যাসিড কিনতে গেলে সাব ডিভিসন ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতি নিতে হবে।
কেন্দ্রীয় সরকারও খোলা বাজারে অ্যাসিড বিক্রির ক্ষেত্রে নতুন কিছু আইন আনতে চলেছে।
১) শুধুমাত্র লাইসেন্সধারী বিক্রেতা অ্যাসিড বিক্রি করতে পারবেন।
২) বিক্রেতা অ্যাসিড বিক্রি করার আগে ক্রেতার থেকে অবশ্যই তাঁর বৈধ পরিচয়পত্র দেখতে চাইবেন। নথিভুক্ত করতে হবে ক্রেতার টেলিফোন নম্বর, বাড়ির ঠিকানা এবং অ্যাসিড কেনার কারণ এবং কত খানি অ্যাসিড বিক্রি করা হল।
৩) খুচরো বাজারে মানুষের শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক নয় সেই ধরনের ডাইলুটেড অ্যাসিড বিক্রি করা যাবে।
৪) ১৮ বছরের নীচে কেউ অ্যাসিড কিনতে পারবে না।

Tags: