বাধ সাধল আবহাওয়া, অগ্নি ৫ এর উত্‍‍ক্ষেপ বাতিল

Last Updated: Wednesday, April 18, 2012 - 21:43

পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম `ভূমি থেকে ভূমি` ক্ষেপণাস্ত্র অগ্নি-৫-এর সফল পরীক্ষামূলক উত্‍‌ক্ষেপণ বাতিল করল ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা সংস্থা ডিআরডিও। বুধবার সকালে ওড়িশার বালেশ্বর উপকূলের কাছে `ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জ`(আইটিআর)-এর একটি `লঞ্চিং প্যাড` থেকে উত্‍ক্ষেপণ করার কথা ছিল। খারাপ আবহাওয়ার জন্য পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিআরডিও। বৃহস্পতিবার মিসাইলটি উত্‍‍ক্ষেপণের চেষ্টা করা হবে বলে জানানো হয়েছে। পাঁচ হাজার কিলোমিটার পাল্লায় লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম, ভারতীয় বিজ্ঞানীদের তৈরি এই প্রথম ইন্টারকন্টিনেন্টাল ব্যালেস্টিক মিসাইল (অন্তর্মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র)।
১৭ মিটার দৈর্ঘ্য, ২ মিটার প্রস্থ এবং ৫০ টন ওজনের এই `অন্তর্বতী পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র`টির সঙ্গে দু`টি অতিরিক্ত কম্পোসিট মোটর সংযুক্ত করার পরীক্ষাতেও প্রাথমিক সাফল্য পেয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষা বিজ্ঞানীরা। এর ফলে আমেরিকা, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন ও চিনের পর বিশ্বের ষষ্ঠ রাষ্ট্র হিসেবে অন্তর্মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের অধিকারী হতে চলেছে নয়াদিল্লি। উল্লেখ্য, ১৯৮৯ সালে চাঁদিপুর উপকূলেই অগ্নি সিরিজের প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র, অগ্নি-১-এর সফল পরীক্ষা করেন ডিআরডিও-র বিজ্ঞানীরা। দীর্ঘ পরীক্ষানিরীক্ষার পর ২০০২ সালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অস্ত্রসম্ভারে ঠাঁই করে নেয় ৭০০ কিমি পাল্লার এই `ভূমি থেকে ভূমি` ক্ষেপণাস্ত্র।
১ টন ওজনের বিস্ফোরক বহনযোগ্য অগ্নি-সিরিজের এই নবতম সংস্করণে প্রয়োজনে পরমাণু অস্ত্রও ব্যবহার করা যায়। অত্যাধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে চালিত অগ্নি-৫ ভারতীয় ক্ষেপণাস্ত্র গবেষণার ইতিহাসে এক নতুন দিশার সূচনা করবে বলেই মনে করেছেন ডিআরডিও-র ক্ষেপণাস্ত্র বিভাগের বিজ্ঞানীরা। প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৫ নভেম্বর ওড়িশা উপকূলে সফলভাবে ৩,০০০ কিলোমিটার পাল্লার অগ্নি-৪ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছিল ডিআরডিও। সে সময় অগ্নি-৪-এর নিখুঁত `কন্ট্রোল অ্যান্ড গাইডেন্স সিস্টেম` চমকে দিয়েছিল করেছিল প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের। আপাতত দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি অগ্নি-৫-ই ভারতের সব থেকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র। বর্তমানে ডিআরডিও-র ক্ষেপণাস্ত্র বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে আরও দূরপাল্লার অগ্নি-৬ এবং `সূর্য` ক্ষেপণাস্ত্র নির্মাণের পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে ওড়িশার চাঁদিপুর সমুদ্রসৈকতের অনতিদূরে `হুইলার আইল্যান্ড`-এ।



First Published: Wednesday, April 18, 2012 - 21:43


comments powered by Disqus