রায়গঞ্জে এমইস গড়তে এককাট্টা দীপা-ডালু

রায়গঞ্জে এমইস গড়তে এককাট্টা দীপা-ডালু

রায়গঞ্জে এমইস গড়তে এককাট্টা দীপা-ডালু রাজ্য সরকার না চাইলেও রায়গঞ্জেই এইমস তৈরি করতে চায় কেন্দ্র। কংগ্রেসের দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দীপা দাশমুন্সি ও আবু হাসেম খান চৌধুরী ফের একথা স্পষ্ট করে দিলেন। যোজনা কমিশনের অনুমোদন ছাড়াই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নানা রেল প্রকল্প ঘোষণা করেছেন বলে আজ অভিযোগ করেন দীপা দাশমুন্সি। 

মন্ত্রী হওয়ার পর রায়গঞ্জে এইমস তৈরি করা নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্রমশ সুর চড়াচ্ছেন দীপা। শুক্রবার, শিলিগুড়ি ও ডালখোলায় তিনি বলেন, রাজ্য সরকার জমি না দিলে রায়গঞ্জে এইমসের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারই জমির ব্যবস্থা করবে। এইমসের জন্য টাকার কোনও অভাব হবে না বলেও এদিন মালদা ফিরে দাবি করেন আবু হাসেম খান চৌধুরী।

শুক্রবার, শিলিগুড়ি হয়ে উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা ও রায়গঞ্জে যান দীপা দাশমুন্সি। রায়গঞ্জের পানিশালায় এইমসের জন্য জমি দিতে ইচ্ছুক পরিবারগুলির তরফে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ডালখোলায় দীপা দাশমুন্সি বলেন, পানীয় জলের জন্য গত মে মাসে রায়গঞ্জ পুরসভাকে ১৭ কোটি টাকা দিয়েছিল কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রক। সেই টাকা রাজ্য সরকার মারফত রায়গঞ্জ পুরসভার হাতে যাওয়ার কথা। যদিও, এতদিন পরেও পুরসভা কোনও টাকা না পাওয়ায় রাজ্য সরকারকে কাঠগড়ায় দাঁড় করান দীপা দাশমুন্সি। এদিন, শিলিগুড়িতে, রেলমন্ত্রী থাকাকালীন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা করা বিভিন্ন রেল প্রকল্পের ভবিষ্যত নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন তিনি।

শুক্রবার, কলকাতা থেকে গৌড় এক্সপ্রেসে কোতোয়ালির বাড়িতে ফেরেন আবু হাসেম খান চৌধুরী। সেখানেই কংগ্রেস সমর্থকদের সঙ্গে তিনি দাদা গণি খান চৌধুরীর জন্মদিন পালন করেন। আবু হাসেম খান চৌধুরীর গলাতেও ছিল রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনার সুর। একের পর এক শিশুমৃত্যুর পর মালদা মেডিক্যাল কলেজের পরিকাঠামো উন্নয়নে কেন্দ্রীয় সরকার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু, রাজ্য সরকার ঠিকমতো কাজ করতে পারছে না বলে অভিযোগ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর।

First Published: Friday, November 02, 2012, 22:29


comments powered by Disqus