ভোরের আলো ফুটতেই ফাঁসি আজমল কসাভের

মুম্বই হামলার ঘটনায় সাজাপ্রাপ্ত পাকিস্তানি জঙ্গি আজমল কসাভের ফাঁসি হয়ে গেল। আজ সকাল সাড়ে সাতটায় পুণের ইয়েরওয়াড়া জেলে কসাভকে ফাঁসি দেওয়া হয় বলে মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত চিকিত্সকও কসাভকে মৃত ঘোষণা করেছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে খবর, কসাভের প্রাণভিক্ষার আবেদন গত পাঁচই নভেম্বরই কসাভের ফাঁসির আর্জি খারিজ করে দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি। এই সংক্রান্ত যাবতীয় নথি তারপর পাঠিয়ে দেওয়া হয় মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে।

Updated: Nov 21, 2012, 09:25 AM IST

মুম্বই হামলার ঘটনায় সাজা প্রাপ্ত পাকিস্তানি জঙ্গি আজমল কসাভের ফাঁসি হয়ে গেল। আজ সকাল সাড়ে সাতটায় পুণের ইয়েরওয়াড়া জেলে কসাভকে ফাঁসি দেওয়া হয় বলে মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত চিকিত্সকও কসাভকে মৃত ঘোষণা করেছেন। জেলের ভিতরেই কসাভের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় বলে জানান মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পৃথ্বীরাজ চৌহান।
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীলকুমার শিণ্ডে জানিয়েছেন, কসাভের প্রাণভিক্ষার আবেদন গত পাঁচই নভেম্বরই খারিজ করে দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি। তারপর সাত নভেম্বর কসাভের প্রাণদণ্ডের নির্দেশে সই করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীলকুমার শিণ্ডে। আট তারিখ সেই ফাইল পাঠিয়ে দেওয়া হয় মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে। সেই ফাইলেই কসাভের মৃত্যুর দিনক্ষণ স্থির করা ছিল বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীলকুমার শিণ্ডে জানিয়েছেন।
তিনি আরও জানিয়েছেন, নিরাপত্তার কারণেই কসাভের মৃত্যু নিয়ে গোপনীয়তা রক্ষা করা হয়েছে। তিনি বলেন, পাকিস্তান চাইলে কসাভের দেহ তাদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। বিদেশমন্ত্রকের তরফে কসাভের দেহ তুলে দেওয়ার কথা ইসলামাবাদকে জানানোও হয়েছে। কিন্তু, পাকিস্তানের তরফে এখনও কোনও জবাব আসেনি বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীলকুমার শিণ্ডে।
মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আর আর পাতিল বলেন, "বহু মানুষের মৃত্যুর কারণ ছিল আজমল কসাভ। মুম্বই হামলায় ১৬৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এক পুলিস কর্মী নিজের প্রাণ দিয়ে সে দিন কসাভকে গ্রেফতার করা করেছিলেন। আজ তাঁর জন্যই কসাভকে চূড়ান্ত শাস্তি দেওয়া সম্ভব হল।"