প্রসঙ্গ অমর্ত্য: ক্ষমা চাইলেন চন্দন, থামল না বিতর্ক

Last Updated: Friday, July 26, 2013 - 22:08

চন্দন মিত্র ক্ষমা চেয়ে নিলেও অমর্ত্য সেনকে ঘিরে বিতর্ক পিছু ছাড়ল না বিজেপির। আজ শিবসেনা মুখপত্র সামনায়, অমর্ত্য সেনের বিরুদ্ধে নতুন করে তোপ দেগেছেন উদ্ভব ঠাকরে। ঘনিষ্ঠ শরিকের এই অবস্থানে নতুন করে অস্বস্তিতে নরেন্দ্র মোদীর দল। চন্দন মিত্রের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন নীতীশ কুমার।
নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী পদে দেখতে চান না যিনি, সেই অমর্ত্য সেনের ভারত রত্ন সম্মান কেড়ে নেওয়া উচিত। মন্তব্য করেছিলেন বিজেপি নেতা চন্দন মিত্র। দেশজোড়া বিতর্কের মাঝে নিজের সেই মন্তব্যের জন্য দুঃখপ্রকাশ করলেন তিনি। চন্দন মিত্র জানিয়েছেন, আমি মনে করি আমি কিছু বেশিই বলে ফেলেছি। অমর্ত্য সেনের কাছ থেকে ভারতরত্ন কেড়ে নেওয়ার মন্তব্যের জন্য আমি দুঃখপ্রকাশ করেছি।
চন্দন মিত্রের মন্তব্যের জন্য ইতিমধ্যেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে দেশজুড়ে।
চন্দন মিত্রকে ঘিরে শুরু থেকেই অস্বস্তিতে ছিল বিজেপি। তাঁর ক্ষমা চাওয়ার পরেও সেই অস্বস্তি কাটছে না। কারণ অমর্ত্য সেনের বিরুদ্ধে নতুন করে তোপ দেগেছে এনডিএ শরিক শিবসেনা। শিবসেনা মুখপত্র সামনায় চন্দন মিত্রের মন্তব্যের সমালোচনা করা হলেও কটাক্ষ করা হয়েছে অমর্ত্য সেনকেও। সম্পাদকীয় পাতায় উদ্ভব ঠাকরে লিখেছেন,অমর্ত্য সেন একজন অর্থনীতিবিদ। কিন্তু দেশের গরিব মানুষ জানেন না তিনি কী করেন? দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি খারাপ। তার জন্য মোদী দায়ী নন। একজন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ হয়েও অমর্ত্য সেনের কাছে এই অসুখের কোনও ওষুধ নেই। যদি মানুষ তাঁকে বলেন, রাজনীতিতে নাক না গলিয়ে নিজের কাজ সঠিকভাবে করতে, অমর্ত্য সেনের কাছে তার কী উত্তর থাকবে?  
চন্দন মিত্রের ক্ষমা চাওয়ার পরেই অমর্ত্য সেন বিতর্ক শেষ হবে বলে আশা করেছিলেন বিজেপি নেতারা। কিন্তু, শুক্রবার শিবসেনা মুখপাত্রের সম্পাদকীয় সামনে আসার পর তা নতুন করে চাগাড় দিল বলেই মনে করা হচ্ছে।



First Published: Friday, July 26, 2013 - 22:08


comments powered by Disqus