বোরিসিচই লাল হলুদে চতুর্থ বিদেশি

বোরিসিচই লাল হলুদে চতুর্থ বিদেশি

বোরিসিচই লাল হলুদে চতুর্থ বিদেশিবোরিসিচই হলেন ইস্টবেঙ্গলের চতুর্থ বিদেশি। কোচের থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর ইস্টবেঙ্গল কর্তারা বোরিসিচকেই চতুর্থ বিদেশি হিসেবে চুক্তিবদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিলেন। বোরিসিচের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল কোচ মরগ্যানকেই। মাত্র তিনদিনের ট্রায়ালে বোরিসিচকে দেখে তাঁর সিদ্ধান্তের কথা কর্তাদের জানান কোচ। প্রসঙ্গত, ৩০ সেপ্টেম্বর ইন্দোনেশিয়ার ক্লাবের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলেছিলেন অসি স্ট্রাইকার। তারপর ম্যাচের মধ্যে না থাকায় ম্যাচ ফিট ছিলেন না বোরিসিচ। অনুশীলনে তা ধরাও পড়েও। কিন্তু মরগ্যানের পছন্দ হওয়ায় বোরিসিচেই সিলমোহর দেন কর্তারা। বৃহস্পতিবার রাতেই অস্ট্রেলিয়া উড়ে যাবে আন্দ্রেই বোরিসিচ।

ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কোচ হিসেবে পিকে ব্যানার্জি ১৯৭২ সালে টানা ৭২টি ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড করেছিলেন।মরগ্যান এখন ৩০ টি ম্যাচে অপরাজিত। তবে এই পরিসংখ্যানে স্থান পায়নি বিদেশের মাটিতে এএফসি কাপে ইস্টবেঙ্গলের হার। এই নিয়ে কমবেশি বিতর্কও তৈরি হচ্ছে। ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের এই রেকর্ড স্বপ্ন নিয়ে আদৌ ভাবিত নন মরগ্যান। বরং তাঁর টার্গেট আইলিগের আগামি দুটি হোম ম্যাচে পুরো ছয় পয়েন্ট। আগামি দুটি ম্যাচে ড্র করলেও পিকে ব্যানার্জির রেকর্ড ছুঁতে পারবেন মরগ্যান। কিন্তু সেই রেকর্ডের থেকে তাঁর কাছে বেশি কাঙ্খিত অনেক কষ্টে অর্জিত লিগ শীর্ষে থাকার গর্ব।

এদিকে শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য সতর্ক করা হয়েছে রবিন সিং ও কেভিন লোবোকে। মঙ্গলবার অনুশীলনের পর বুধবার ম্যাচের পরে ক্লাবতাঁবুতে এই দুই ফুটবলারের সঙ্গে আবারও বৈঠকে বসেন ক্লাবের এক শীর্ষকর্তা। সেখানে আরও একবার সতর্কিত করা হয় দুই ফুটবলারকে। প্রসঙ্গত, পিয়ারলেস ম্যাচে রবিন সিং গোল করেছেন। দুরন্ত ফুটবল উপহার দিয়েছেন কেভিন লোবোও। ম্যাচের পর ক্লাবের পক্ষ থেকে আরও একবার সতর্ক করলেও কোচ মরগ্যান কিন্তু পাশেই দাঁড়াচ্ছেন এই দুই ফুটবলারের। ইস্টবেঙ্গল কোচের কাছে শেষ কথা পারফরম্যান্স। তাই লোবোর পারফরম্যান্সের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করার পাশাপাশি মরগ্যানের দাবি আইলিগের দলে নিজের জায়গা করে নিতে পারেন রবিন। ফুটবলারদের শৃঙ্খলাভঙ্গের খবর বাইরে চলে আসায় ক্লাবের পক্ষ থেকে অবশ্য তড়িঘড়ি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কোনও ফুটবলারকেই সতর্ক করা হয়নি। 

First Published: Thursday, November 22, 2012, 20:28


comments powered by Disqus