জন্মতারিখ বিতর্কে সেনাবাহিনীকেই দায়ী করলেন অ্যান্টনি

Last Updated: Tuesday, January 31, 2012 - 15:12

সেনাপ্রধানের বয়স বিতর্কের জন্য সেনাবাহিনীকেই দুষলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি। প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর বক্তব্য, ৩০ বছরের বেশি সময় ধরে সেনাপ্রধান জেনারেল ভি কে সিংয়ের দুটো জন্মতারিখ লেখা রয়েছে সেনাবাহিনীর রেকর্ডে। তার ফলেই এখন বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এদিন তিনি বলেন, ``৩৬ বছর ধরে সেনাবাহিনীর দুটি শাখায় দু`রকম জন্মতারিখ রয়েছে সেনাপ্রধানের। সেই কারণেই এই বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এর জন্য সরকার কোনও ভাবেই দায়ী নয়।``

বয়স বিতর্কের নিরসন ঘটাতে ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন দাখিল করেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল ভি কে সিং। আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি তাঁর পিটিশনের শুনানির দিন ধার্য করেছে সুপ্রিম কোর্ট। সরকারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সেনাপ্রধানের সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার বিষয়ে অ্যান্টনি জানান, সরকারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানানোর অধিকার প্রত্যেক নাগরিকেরই রয়েছে। সেনাপ্রধানের জন্মতারিখ বিতর্ক, সেনা-সরকার সংঘাত নয় বলেও দাবি করেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। সেনাপ্রধানের জন্মতারিখ সংশোধন করতে নির্দেশ দিয়ে সম্প্রতি মিলিটারির প্রশাসনিক প্রধান অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল শাখাকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রক। ওই চিঠিতে সেনাপ্রধান জেনারেল ভি কে সিং-এর জন্ম তারিখ সংশোধন করে ১৯৫০ সালের ১০ মে করতে বলা হয়েছে। অ্যাডজুটেন্ট জেনারেলের নথিতে সেনাপ্রধানের জন্ম তারিখ রয়েছে ১০ মে ১৯৫১।
সরকারি রেকর্ডে জেনারেল ভি কে সিংয়ের বয়স সংক্রান্ত দু`রকম তথ্য নথিভুক্ত রয়েছে। তাঁর ম্যাট্রিকুলেশন সার্টিফিকেটে জন্ম তারিখ হিসেবে ১৯৫১ সালের ১০ মে উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু পরবর্তী কালে ইউপিএসসি`র প্রবেশিকা পরীক্ষায় এবং সেনাবাহিনীর পার্সোনেল বিভাগে তিনি নিজের জন্ম তারিখ হিসেবে ১৯৫০ সালের ১০ মে তারিখের উল্লেখ করেন। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক ইউপিএসসি এবং পার্সোনেল বিভাগে দেওয়া তথ্যটিকেই প্রামাণ্য বলে মনে করছে। এই হিসেবে চলতি বছরের ৩১ মে তাঁর অবসর নেওয়ার কথা। কিন্তু অবসর গ্রহণে নারাজ জেনারেল সিংয়ের দাবি, ম্যাট্রিকুলেশনের শংসাপত্রে তাঁর প্রকৃত বয়স উল্লিখিত হয়েছে। এই হিসেবে তাঁর অবসর গ্রহণের দিন, ২০১৩-র ৩১ মে।



First Published: Tuesday, January 31, 2012 - 15:15


comments powered by Disqus