অন্তর্ধানে 'গডম্যান', সাংবাদিকদের ওপর হামলা আসারামের সমর্থকদের

Last Updated: Saturday, August 31, 2013 - 09:55

ফের একবার সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালাল আসারামের সমর্থকরা। শনিবার যোধপুরে বাপুর আশ্রমের সামনেই সাংবাদিকদের ওপর হামালা চালানো হয়। রাজস্থান সরকারের কাছে ঘটনার রিপোর্ট তলব করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। গতকালও ভোপাল বিমানবন্দরেও সাংবাদিকদের মারধর করে আসারামের সমর্থকরা।
যোধপুর পুলিসের সঙ্গে 'লুকোচুরি' খেলছেন 'গডম্যান' আসারাম বাপু। কিশোরীকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় তাঁর খোঁজ চালাচ্ছে পুলিস। ইন্দোর পুলিসের তরফে জানানো হয়েছে শহরের আশ্রমে নেই আসারাম বাপু। তাঁকে জেরা করতে আজ ভোপাল যাচ্ছে যোধপুর পুলিসের বিশেষ দল।
ইন্দোরের পুলিস সুপার বললেন, "আসারাম ইন্দোরে নেই। যোধপুর পুলিস আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি।"  
অন্যদিকে, বিমানবন্দরে বাপু সমর্থকদের হাতে সাংবাদিক নিগ্রহের ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। আসারাম পুলিসের চোখে ধুলো দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে নির্যাতিতা কিশোরীর পরিবার। কিশোরীর বাবা অনশনে বাসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
শুক্রবার পেরিয়ে যায় চরমসীমা। তা সত্ত্বেও যোধপুর পুলিসের জেরার সম্মুখীন হননি আসারাম বাপু। ১৬ বছরের এক কিশোরীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে ৭২ বছরের `গডম্যান` আসারামকে খুঁজছিল পুলিস। গতকাল তাঁর আগাম জামিনের আবেদনও খারিজ হয়ে যায়। পুলিস জানিয়েছে, এখন ভোপালে রয়েছেন বাপু।
যোধপুর পুলিসের ডিসিপি অজয় পাল লাম্বা বলেন, ``শুক্রবার বাপুর তরফে আমরা একটা ফ্যাক্স পেয়ছি। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জেরার জন্য তিনি আরও কিছুটা সময় চেয়েছেন।" কিন্তু কোনও যুক্তিতেই তাঁকে আর সময় দিতে রাজি নয় পুলিস।
মঙ্গলবার শ্লীলতাহানির ঘটনায় আসারামের বিরুদ্ধে সমন জারি করা হয়। শুক্রবারের মধ্যে তাঁকে জেরার সম্মুখীন হওয়ার সময়সীমা দেওয়া হয়। বাপুকে হেফাজতের জন্য ইতিমধ্যেই তোড়জোড় শুরু হয়েছে। ভোপালে যাচ্ছে যোধপুর পুলিসের একটি বিশেষ দল। সেখানেই জেরা করা হবে আসারামকে। জেরার পরই তাঁকে গ্রেফতার করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।



First Published: Saturday, August 31, 2013 - 14:16


comments powered by Disqus