সমকামিতা প্রকৃতিবিরুদ্ধ, তাই সমর্থন করা যায় না, বিতর্কিত অবস্থান বিজেপির

বিতর্কিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে দিল বিজেপি। সমকামিতা দণ্ডনীয় অপরাধ বলে সুপ্রিম কোর্টে যা রায় দিয়েছে তার পাশেই দাঁড়াল বিজেপি। ৩৭৭ ধারা বজায় রাখার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে।

Updated: Dec 15, 2013, 03:28 PM IST

বিতর্কিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করে দিল বিজেপি। সমকামিতা দণ্ডনীয় অপরাধ বলে সুপ্রিম কোর্টে যা রায় দিয়েছে তার পাশেই দাঁড়াল বিজেপি। ৩৭৭ ধারা বজায় রাখার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে।

বিজেপির পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হল, সমকামিতা হল অপ্রকৃতিস্থ ব্যাপার (“an unnatural act”) তাই এটাকে কোনওভাবেই সমর্থন করা যায় না। বিজেপি-র সভাপতি রাজনাথ সিং জানান, তাঁর দল ৩৭৭ ধারাকে সমর্থন করবে, যে ধারায় সমকামিতাতে নিষিদ্ধ ও দণ্ডনীয় অপরাধ হিসাবে গণ্য করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নিতে চাইলে তার দল বিরোধিতা করা হবে বলেও রাজনাথ জানান। সংসদে বিল এনে আইন প্রণয়নের সম্ভাবনা হলে বিজেপি তার বিরোধিতা করেব বলেও জানান তিনি৷

দলের একটা অংশ সমকামিতার পক্ষে দাঁড়ালেও ভোট ব্যাঙ্কের কথা ভেবে ধর্মীয় সংগঠনগুলিকে চটাতে চায় না বিজেপি। হিন্দু-মুসলিম বেশ কিছু সংগঠন প্রকাশ্যেই সমকামিতার বিরুদ্ধে বলে এসেছে। তাই বিজেপি এইরকম সিদ্ধান্ত নিল বলে মনে করা হচ্ছে। যা নিয়ে দলেরই একটা অংশে ক্ষোভ রয়েছে। এমন সিদ্ধান্ত বিজেপিকে পিছনের দিকে নিয়ে যাবে বলেও বিজেপির অনেক নেতা অফ দ্য ক্যামেরা বললেন।

ধিক্কার -প্রতিবাদের যে ঢেউ উঠেছে দেশজুড়ে , তাতে সামিল হয়েছে কংগ্রেস, সিপিআইএম সহ দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল৷ দেশের বিভিন্ন শহরে শুরু হয়েছে আন্দোলন। কিন্তু চার রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে দারুণ ফল করে লোকসভা ভোটের আগে যখন তাদের পালে হাওয়া লাগতে শুরু করেছে তখনই সমকামিতা নিয়ে বিজেপির এই অবস্থান দেশের একটা বড় অংশকে হতাশ করেছে। এলজিবিটি আন্দোলনের সঙ্গে জড়িতরাও দেশের প্রধান বিরোধি দলের এই অবস্থান নিয়ে হতাশ।

কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী থেকে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম এই রায়ের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন।