সমর্থন প্রশ্নে সিদ্ধান্ত পরে: মায়াবতী

এফডিআই ইস্যুতে সিদ্ধান্ত করতে আজই বৈঠকে বসছে বিএসপির কর্মসমিতি। তারপরই জানা যাবে, কেন্দ্রীয় সরকার থেকে সমর্থন প্রত্যাহার, নাকি সরকারকে সমর্থন দিয়ে যাওয়া, কী সিদ্ধান্ত নেবেন মায়াবতী। গতকাল লখনউতে এক জনসভায় নানান ইস্যুতে কেন্দ্র ও রাজ্যের কড়া সমালোচনা করেছেন মায়বতী। তবে খুচরো ব্যবসায় বিদেশি বিনিয়োগে মায়াবতীর তীব্র আপত্তি থাকলেও কেন্দ্রের ওপর সমর্থন প্রত্যাহারের বিষয়টি নিয়ে দলের অবস্থান এদিন খোলসা করেননি। সভামঞ্চ থেকেই জানিয়ে দিয়েছেন, দলের কর্মসমিতির বৈঠকে বুধবার এব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Updated: Oct 10, 2012, 09:55 AM IST

এফডিআই ইস্যুতে বিরোধিতা সত্ত্বেও সমর্থনে প্রশ্নে কেন্দ্রীয় সরকারের ওপর চাপ বজায় রাখলেন বিএসপি নেত্রী মায়াবতী। আজ লখনউয়ে বিএসপি-র কর্মসমিতির বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে মায়াবতী জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় সরকারকে সমর্থনের বিষয়ে বৈঠকে কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে, দল এবিষয়ে তাঁকেই দায়িত্ব দিয়েছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে খুব শিগগিরি  সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানিয়েছেন বিএসপি সুপ্রিমো। তবে, এদিনও কেন্দ্রীয় নীতির কড়া সমালোচনা করেছেন মায়াবতী। তাঁর মতে, জনবিরোধী নীতি নিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার।
লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে গতকাল থেকেই নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন মায়াবতী। লখনউয়ের রামবাই ময়দানের সভাস্থল থেকে কেন্দ্র এবং রাজ্যের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন তিনি। কেন্দ্র এবং রাজ্য দুই সরকারই দলিত বিরোধী নীতি বলে মন্তব্য করেন তিনি। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ করেছেন বিএসপি সুপ্রিমো। উত্তরপ্রদেশে নারীরা নিরাপদ নন বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। অখিলেশ যাদবের আমলে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে বলে মায়াবতীর অভিযোগ।