মন্ত্রিসভার বৈঠকে বাড়তে পারে ডিজেলের দাম

ডিজেলে আংশিক বিনিয়ন্ত্রণ, বাড়ল ভর্তুকি-গ্যাসের সংখ্যা

ডিজেলে আংশিক বিনিয়ন্ত্রণ, বাড়ল ভর্তুকি-গ্যাসের সংখ্যাআরেক প্রস্থ আর্থিক সংস্কারের দিকে পা বাড়িয়ে ডিজেলের দাম বিনিয়ন্ত্রণ করার সিদ্ধান্ত নিল দ্বিতীয় ইউপিএ সরকার। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। আজ কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী বীরাপ্পা মইলি জানিয়েছেন, এবার বাজারের পরিস্থিতি অনুযায়ী ডিজেলের দাম স্থির করবে তেল বিপণনকারী সংস্থাগুলি। তবে মইলি জানিয়েছেন, তেল সংস্থাগুলি প্রতি ধাপে খুব কমই দাম বাড়াতে পারবে। মুলত ডিজেলে লিটার পিছু যে ৯ টাকা ৬০ পয়সা লোকসান হচ্ছে, সেই ঘাটতি মেটাতেই এই মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত।

এর আগে ২০১০-এ পেট্রোলের দাম বিনিয়ন্ত্রণ করে সরকার। আজই তেল সংস্থাগুলিকে বৈঠকে ডেকেছে পেট্রোলিয়াম মন্ত্রক। মধ্যরাত থেকেই ডিজেলের দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে এই মুহূর্তে বাড়ছে না রান্নার গ্যাস ও কেরোসিনের দাম। মধ্যবিত্তদের স্বস্তি দিয়ে ভর্তুকিপ্রাপ্ত রান্নার গ্যাস-সিলিন্ডারের ঊর্ধ্বসীমা ৬ থেকে বাড়িয়ে ৯টি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। বৃহস্পতিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগামী আর্থিক বছর থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকরী হবে।

কেন্দ্রের ডিজেলের মূল্য আংশিক বিনিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করল সিপিআইএম। সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাট জানিয়েছেন কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত সাধারণ মানুষের ওপর আক্রমণ। ডিজেলে মূল্য বিনিয়ন্ত্রণের অর্থ লাগাতার ডিজেলের দাম বাড়া।

ডিজেলের মূল্য বিনিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্তের সমালোচনায় সরব বিজেপিও। ডিজেলের দাম বাড়লে তার প্রভাব প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সমস্ত পণ্যের ওপরেই পড়বে বলে জানান বিজেপি নেতা প্রকাশ জাভরেকর। তিনি বলেন সরকার নিজেদের দায়িত্ব থেকে সরে আসার জন্যই দাম নির্ধারণের দায়িত্ব তেল কোম্পানির হাতে তুলে দিয়েছে।






First Published: Thursday, January 17, 2013, 16:36


comments powered by Disqus