লোকপালের আওতায় প্রধানমন্ত্রী, সিবিআই: সিলেক্ট কমিটি রিপোর্ট

এফডিআই ইস্যুতে হই হট্টগোলের মধ্যেই রাজ্যসভায় আজ পেশ হল লোকপাল বিল নিয়ে সিলেক্ট কমিটির রিপোর্ট। রিপোর্টে বলা হয়েছে, দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে লোকপাল। তবে কোনও অভিযোগ ভুল প্রমাণিত হলে বা লোকপাল তা ভুল মনে করলে, তা প্রকাশ করা যাবে না। কিন্তু আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, দেশের নিরাপত্তা, পারমানবিক শক্তি এবং মহাকাশ সংক্রান্ত কোনও বিষয় লোকপালের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। সিবিআইকে লোকপালের আওতায় রেখেছে সিলেক্ট কমিটি।

Updated: Nov 23, 2012, 05:24 PM IST

এফডিআই ইস্যুতে হই হট্টগোলের মধ্যেই রাজ্যসভায় আজ পেশ হল লোকপাল বিল নিয়ে সিলেক্ট কমিটির রিপোর্ট। রিপোর্টে বলা হয়েছে, দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে লোকপাল। তবে কোনও অভিযোগ ভুল প্রমাণিত হলে বা লোকপাল তা ভুল মনে করলে, তা প্রকাশ করা যাবে না। কিন্তু আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, দেশের নিরাপত্তা, পারমানবিক শক্তি এবং মহাকাশ সংক্রান্ত কোনও বিষয় লোকপালের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। সিবিআইকে লোকপালের আওতায় রেখেছে সিলেক্ট কমিটি। গ্রুপ এ, বি, সি, ডি-র সরকারি কর্মীদেরও আনা হয়েছে লোকপালের আওতায়। দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে তিন মাস বা তিন মাসের পর আরও তিন মাস প্রাথমিক তদন্ত চলতে পারে সিলেক্ট কমিটির রিপোর্টে জানানো হয়েছে। তদন্তের ক্ষেত্রে তা করা হয়েছে ছয় মাস। শেষ না হলে আরও ছয় মাস পর্যন্ত তদন্তের সময়সীমা বাড়ানো হবে। 
লোকপালে বিচারপ্রক্রিয়ার সময়সীমা দেওয়া হয়েছে একবছর। এই সময়ের মধ্যে বিচারপ্রক্রিয়া সম্পন্ন না হলে আরও এক বছরের মধ্যে তা শেষ করতে হবে। দুর্নীতি দমন আইনে সাজার মেয়াদ সাত বছর থেকে বাড়িয়ে দশ বছর করা হয়েছে। ন্যূনতম সাজা দুবছর থাকছে।
রিপোর্টে মূল বিল থেকে বিভিন্ন রাজ্যে লোকায়ুক্ত গঠনের বিষয়টি আলাদা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। গতবছর লোকসভায় সর্বসম্মতভাবে লোকপাল বিল পাসের পর তা পাস হয়নি রাজ্যসভায়। ফলে বিলটিকে পুনর্বিবেচনার জন্য সিলেক্ট কমিটির কাছে পাঠায় সরকার। সংসদের বাদল অধিবেশনেই সত্যব্রত চতুর্বেদীর নেতৃত্বাধীন সিলেক্ট কমিটির রিপোর্ট পেশ করার কথা ছিল।