কোল ব্লক ইস্যুতে আজও উত্তাল সংসদের উভয় কক্ষ

কয়লার ব্লক বণ্টন নিয়ে দুর্নীতির ইস্যুতে আজও উত্তাল হল সংসদ। প্রবল হইহট্টগোলের জেরে দিনের মতো মুলতুবি হয়ে গেল লোকসভার অধিবেশন। রাজ্যসভার অধিবেশন দুপুর দুটো পর্যন্ত মুলতুবি রাখা হয়েছে।

Updated: Aug 30, 2012, 01:48 PM IST

কয়লা ব্লক বণ্টনে দুর্নীতির অভিযোগে আগামিকাল সংসদের বাইরে ধরনায় বসবে সিপিআইএম, সিপিআই, সমাজবাদী পার্টি এবং তেলেগু দেশম পার্টি। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় সংসদের উভয়কক্ষ মুলতুবি হয়ে যাওয়ার পরই বৈঠকে বসে এই ৪ রাজনৈতিক দলের নেতারা। সংসদের অচলাবস্থা নিয়ে কথা হয় বৈঠকে। আগামিকালের ধরনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সুপ্রিম কোর্টের কোনও বিচারপতিকে দিয়ে কয়লার ব্লক বণ্টন নিয়ে দুর্নীতির তদন্তের দাবি করেছে এই চার দলের নেতারাই। সংসদ সচল রেখে প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতির ওপর আলোচনাও দাবি করেছেন তাঁরা।
কয়লার ব্লক বণ্টন নিয়ে দুর্নীতির ইস্যুতে আজও উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদ। প্রবল হইহট্টগোলের জেরে দিনের মতো মুলতুবি হয়ে গেল লোকসভার অধিবেশন। রাজ্যসভার অধিবেশন দুপুর দুটো পর্যন্ত মুলতুবি রাখা হয়। আজ অধিবেশনের শুরুতেই বিরোধীরা কয়লার ব্লক বণ্টন ইস্যুতে সরব হয়। মিনিট সাতেক চলার পর সকাল ১১ টা নাগাদ এক ঘণ্টার জন্য মুলতুবি করা হয় লোকসভা। ১২ টায় অধিবেশন বসলে ফের হট্টগোল শুরু হয়। এরপর দিনের মতো লোকসভা মুলতুবি করে দেন স্পিকার। অন্যদিকে সকালে রাজ্যসভার অধিবেশনের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীর ইস্তফা দাবিতে সরব হন বিজেপি সাংসদরা। কংগ্রেস সাংসদরাও পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় হাঁটে। তবুও চেয়ারম্যান হামিদ আনসারি সভা চালানোর চেষ্টা করেন। ওয়েলে বিক্ষোভ শুরু হলে সভা মুলতুবি করে দেন তিনি। ১২ টার সময় ফের অধিবেশন বসলে ছবিটার কোনও পরিবর্তন হয়নি। দুপুর দুটো পর্যন্ত রাজ্যসভাও মুলতুবি হয়ে যায়।
ক্যাগ রিপোর্ট নিয়ে বিতর্কের জেরে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতুবী রাখা হয় সংসদের অধিবেশন। বৃহস্পতিবার ফের অধিবেশন বসলে শুরুতেই উত্তাল হয়ে সংসদের দুই কক্ষই। কয়লার ব্লক বণ্টন ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ইস্তফার দাবিতে এঅনড় বিজেপি। যদিও, কংগ্রেস এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে। কয়লা কেলেঙ্কারির টাকা কংগ্রেসের পকেটে গেছে বলে বিজেপির অভিযোগ। একশো বিয়াল্লিশটি কয়লা ব্লকের বণ্টন বাতিল করে নিলামেরও দাবি জানিয়েছে তারা। কয়লার ব্লক বণ্টন নিয়ে সিবিআই তদন্তের পরিধি বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে সিপিআইএম। বিচারবিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছে সিপিআই।