চার রাজ্যে বিজেপির জয়জয়কার, লোকসভা নির্বাচনেও কি দেখা যাবে একই চিত্র? পক্ষে-বিপক্ষে চলছে চাপানউতোর

Last Updated: Sunday, December 8, 2013 - 17:10

চার রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়জয়কার। ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের আগে এই বিধানসভা নির্বাচনকে সেমিফাইনাল হিসেবে ধরা হচ্ছিল। প্রশ্ন উঠেছে, আগামী লোকসভা ভোটেও কি এই ট্রেন্ড বজায় থাকবে? এই প্রশ্নের স্বপক্ষে যুক্তি যেমন রয়েছে, তেমনই রয়েছে বিপক্ষের যুক্তি।দরজায় কড়া নাড়ছে লোকসভা ভোট। তার আগে উত্তর ভারতের হিন্দি বলয় জুড়ে বয়ে গেল গেরুয়া ঝড়। উচ্ছ্বসিত বিজেপি শিবির এখন দিল্লির মসনদকে পাখির চোখ দেখছে।

তাদের এই বিপর্যয়ের জন্য জনতার আক্রোশকেই দায়ী করেছে কংগ্রেস। কারণ, পেঁয়াজ থেকে শুরু করে পেট্রোপণ্য, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের আকাশছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধি এবং একের পর এক দুর্নীতির ঘটনায় কংগ্রেসের বিরুদ্ধে অনেকদিন ধরেই জনমত দৃঢ় হচ্ছিল।

এখন প্রশ্ন, তাহলে কি লোকসভা ভোটেও একই ভাবে পর্যুদস্ত হবে কংগ্রেস? রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এবিষয়ে দ্বিধাবিভক্ত। একপক্ষের বক্তব্য, বিধানসভা ভোট আর লোকসভা ভোট পিঠোপিঠি হলে জয়ী দল লোকসভা ভোটে তার সুফল পায়।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের যুক্তি, মূল্যবৃদ্ধির কারণে যেখানে মানুষের হেঁশেলেই আগুন লেগে গিয়েছে, সেখানে তাঁরা রাস্তাঘাট, নিকাশি এসব নিয়ে ভাবতে নারাজ। তাই দুর্নীতি, মূল্যবৃদ্ধির মতো জাতীয় ইস্যুগুলি বিধানসভা ভোটে বড় প্রভাব ফেলছে। ফলে বিধানসভা ভোটের ফল প্রভাব ফেলছে লোকসভা নির্বাচনে। কিন্তু রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অন্য একটা অংশ এই বক্তব্য মানতে নারাজ।

তাঁদের যুক্তি জনতার আবেগ সুইং করতে কয়েক মাসই যথেষ্ট। উদাহরণ হিসেবে বলা হচ্ছে এনডিএ জমানার পতনের কথা।

২০০৩ সালের বিধানসভা ভোটে মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও রাজস্থানে জয়ী হয়েছিল বিজেপি। তা দেখে ২০০৪ সালের লোকসভা ভোট নভেম্বর মাস থেকে মে মাসে এগিয়ে এনেছিল বাজপেয়ী সরকার। কিন্তু ওই নির্বাচনেই বিজেপির ভোটব্যাঙ্কে ধস নামিয়ে কেন্দ্রে ক্ষমতায় ফেরে ইউপিএ।

দ্বিতীয় যুক্তি হল, চার রাজ্যের ভোটের ফল লোকসভার মোট আসনের ১৫ % প্রতিফলন। তা দিয়ে গোটা দেশের মানুষের মনোভাব বিচার করা যায় না। তাই চার রাজ্যের ভোটকে লোকসভা ভোটের সেমিফাইনাল বলতে তাঁরা নারাজ।



First Published: Sunday, December 8, 2013 - 17:10


comments powered by Disqus