কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকের আগে অবাধ নির্বাচন চেয়ে কমিশনে সিপিআইএম

Last Updated: Saturday, June 9, 2012 - 14:57

শনিবার দিল্লিতে শুরু হল সিপিআইএম কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক। দু`দিনের এই বৈঠকে বেশ কয়েকটি সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন সিপিআইএম কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। মনে করা হচ্ছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বামেদের অবস্থান কী হবে সেই আলোচনায়। এর আগেই চার বামদলের শীর্ষ নেতারা জানিয়েছেন, ইউপিএ কাকে প্রার্থী করছে, তা দেখেই নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাবেন তাঁরা।
ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী হিসেবে বেশ কয়েকজনের নাম উঠে আসছে। তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্ব পাচ্ছে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের নাম। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, যদি শেষ পর্যন্ত তাঁকেই রাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী করে ইউপিএ, তাহলে বামেরা প্রণব মুখোপাধ্যায়কে সমর্থন করবে। আজকের বৈঠকে গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা হবে পেনশন বিল প্রসঙ্গটিও। আলোচনায় উঠে আসবে পশ্চিমবঙ্গ এবং কেরালায় দলের সাংগঠনিক পরিস্থিতিও। দুই রাজ্যেই বেশ কিছুটা সমস্যায় রয়েছে দলীয় সংগঠন।
অন্যদিকে দিল্লিতে কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে এসে আগামী ১২ জুন দাসপুর ও বাঁকুড়া বিধানসভার উপনির্বাচন অবাধ করার দাবি জানিয়ে শনিবার দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের দারস্থ হলেন পশ্চিমবঙ্গের সিপিআইএম নেতৃত্ব। দলের পক্ষ থেকে এদিন রাজ্য সম্পাদক বিমান বসু, বিধানসভার বিরোধী দলনেতা সূর্যকান্ত মিশ্র এবং পলিটব্যুরো সদস্য তথা পশ্চিমবঙ্গ থেকে রাজ্যসভায় নির্বাচিত সাংসদ সীতারাম ইয়েচুরি নির্বাচন কমিশন দফতরে যান। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ওয়াই এস কুরেশির সঙ্গে সাক্ষাত্‍ করে উপনির্বাচনের প্রচারে শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ জানান তাঁরা।

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও সিপিআইএম নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন অন্যতম নির্বাচন কমিশনার তথা পরবর্তী মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ভি এস সম্পত। প্রসঙ্গত, রাজ্যের সদ্যসমাপ্ত ৬টি পুরসভার নির্বাচনে শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে রিগিংয়ের অভিযোগ আনা হয়েছিল সিপিআইএম নেতৃত্বের তরফে। এই পরিস্থিতিতে ভোটপ্রক্রিয়া অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করার দাবিতে শুক্রবারই রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সুনীল গুপ্তার সঙ্গে দেখা করেছিলেন রাজ্যের বাম নেতারা। শনিবার দিল্লিতে কুরেশি এবং সম্পতের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত সাক্ষাত্‍পর্বেও একই দাবি জানান সিপিআইএম নেতারা।



First Published: Saturday, June 9, 2012 - 14:57


comments powered by Disqus