দীপক ভরদ্বাজের খুনে গ্রেফতার ৪, সন্দেহে স্ত্রী, পুত্র

দক্ষিণ দিল্লির খামার বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বিএসপি নেতা তথা `রিয়েল এস্টেট টাইকুন` দীপক ভরদ্বাজের খুনে জড়িত চার জনকে গ্রেফতার করল পুলিস। সোমবার এক সাংবাদিক বৈঠকে দিল্লি পুলিসের (দক্ষিণ) ডেপুটি কমিশনার ছায়া শর্মা জানিয়েছেন পুরুষোত্তম রানা ওরফে মনু, সুনীল মান ওরফে সোনু, গাড়ির মালিক রাকেশ ওরফে ভোলা এবং ড্রাইভার অমিতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত রাকেশের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই অমিতকে গ্রেফতার করা গিয়েছে।

Updated: Apr 1, 2013, 06:43 PM IST

দক্ষিণ দিল্লির খামার বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত বিএসপি নেতা তথা `রিয়েল এস্টেট টাইকুন` দীপক ভরদ্বাজের খুনে জড়িত চার জনকে গ্রেফতার করল পুলিস। সোমবার এক সাংবাদিক বৈঠকে দিল্লি পুলিসের (দক্ষিণ) ডেপুটি কমিশনার ছায়া শর্মা জানিয়েছেন পুরুষোত্তম রানা ওরফে মনু, সুনীল মান ওরফে সোনু, গাড়ির মালিক রাকেশ ওরফে ভোলা এবং ড্রাইভার অমিতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত রাকেশের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই অমিতকে গ্রেফতার করা গিয়েছে।
তবে খুনের কারণ এবং খুনের পিছনে আসল ব্যক্তি কে সেই বিষয়ে মুখ খোলেননি ডিসিপি (দক্ষিণ)। তিনি বলেন তদন্তের গতিতেই এই বিষয়গুলি সামনে আসবে।
এর আগে দীপক ভরদ্বাজের খুনের তদন্তে তাঁর স্ত্রী রমেশ কুমারী এবং দুই পুত্র হিতেশ ও নীতেশকেও জেরা করে পুলিস। তাঁদেরকেও সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে।
বেশ কয়েক মাস যাবত দীপক ভরদ্বাজের স্ত্রী ও ছোট ছেলে নীতীশ আলাদা থাকতেন। সূত্রে খবর, নিহত নেতার প্রতি কোনও রাগ ছিল কিনা সেই বিষয়ে জানতেই তাঁদের জেরা করে পুলিস। নীতীশ এর আগে বাবার বিরুদ্ধে পুলিসের কাছে ডায়রি করেন। দীপকবাবুও ছেলের বিরুদ্ধে পালটা ডায়রি করেন।
পুলিস সূত্রে জানান হয়েছে খুব তাড়াতাড়িই এই খুনের রহস্য সমাধান করা যাবে।