দিল্লি গণধর্ষণ মামলায় চার্জ গঠন, আনা হল খুনের অভিযোগ

দিল্লির চলন্ত বাসে ২৩ বছরের এক তরুণীকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় অভিযুক্ত পাঁচজনের বিরুদ্ধে আজ চার্জ গঠন করতে চলেছে ফাস্টট্র্যাক কোর্ট। এই চার্জ গুলির ভিত্তিতেই ফাস্টট্র্যাক কোর্টে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিচার শুরু হবে।

Updated: Feb 2, 2013, 01:18 PM IST

দিল্লির চলন্ত বাসে ২৩ বছরের এক তরুণীকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় অভিযুক্ত পাঁচজনের বিরুদ্ধে আজ চার্জ গঠন করল ফাস্টট্র্যাক কোর্ট। এই চার্জগুলির ভিত্তিতেই ফাস্টট্র্যাক কোর্টে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিচার শুরু হবে আগামি মঙ্গলবার। ভারতীয় দণ্ড বিধির মোট ১৩টি ধারায় এই পাঁচ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সরকার পক্ষের আইনজীবী। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় খুন, ৩৭৬ ধারায় ধর্ষণ, ১২০ বি ধারায় অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, ৩৬৬ ধারায় বলপূর্বক অপহরণ, ২০১ ধারায় প্রমাণ বিকৃত করা, ৩৯৫ ধারায় লুঠ-সহ মোট ১২ টি ধারায় মামলা শুরু হবে৷
গত বছর ডিসেম্বরের ১৬ তারিখ দিল্লিতে ২৩ বছরের এক প্যারামেডিকেল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে তার উপর পৈশাচিক অত্যাচার চালায় ৬জন। এই ঘটনার প্রতিবাদে সারা দেশ উত্তাল হয়ে ওঠে। এরপর ২৮ ডিসেম্বর শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কাছে পরাজিত হয় ওই তরুণী। মেয়েটির মৃত্যুর পর দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ডের জোরালো দাবি ওঠে।
দিল্লির ঘটনার জেরে ধর্ষণ সহ যৌন নির্যাতন রোধে দ্রুত নতুন আইন প্রণয়নে উদ্যোগী হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। গঠিত হয় ভার্মা কমিশন। গত কালই এই কমিশনের রিপোর্টের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয়সরকার নারী নির্যাতন রোধে নয়া অর্ডিন্যান্স নিয়ে এসেছে। এই অর্ডিন্যান্সে এই ধরণের চরম নির্যাতনের ক্ষেত্রে মৃত্যুদণ্ড বা আমৃত্যু কারাবাসের প্রস্তাব আনা হয়েছে।
অন্যদিকে ষষ্ঠ অভিযুক্ত কে জুভেনাইল জাস্টিস বোর্ড নাবালক ঘোষণা করায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয় তরুণীর পরিবারের পক্ষ থেকে। ওই অভিযুক্তের অস্থিমজ্জা পরীক্ষার দাবিও জানান তাঁরা। তবে মেয়েটির বাবা আশা প্রকাশ করেছেন ষষ্ঠ অভিযুক্ত নাবালক হলেও যথাযথ শাস্তিই পাবে।