অভিযুক্ত পলাতক, কড়া নিন্দায় প্রধানমন্ত্রী

দিল্লিতে পাঁচ বছরের শিশুকন্যা ধর্ষণের বর্বরোচিত ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। এদিন খবরটি সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত হওয়াত পরেই টুইটারে তিনি প্রতিক্রিয়া জানান।

Updated: Apr 19, 2013, 10:39 PM IST

দিল্লিতে পাঁচ বছরের শিশুকন্যা ধর্ষণের বর্বরোচিত ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। এদিন খবরটি সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত হওয়াত পরেই টুইটারে তিনি প্রতিক্রিয়া জানান।
এদিন ঘটনাটি সামনে আসার পরই প্রধানমন্ত্রী টুইট করেন, "পাঁচ বছরের একটি শিশুকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় আমি দুঃখিত এবং মর্মাহত।" 
এ দিকে দিল্লিতে ধর্ষিত পাঁচ বছরের শিশুটির অভিযুক্ত পড়শিকে চিহ্নিত করেছে দিল্লি পুলিস।
দিল্লির পুলিস কমিশনার নীরজ কুমার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, "অভিযুক্তকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাকে ধরতে ইতিমধ্যেই একটি দল রওনা দিয়েছে।" উত্তরপ্রদেশের মুজাফরনগরের বাসিন্দা আট দিন আগে ওই বাড়িটি ভাড়া নেন।
দিল্লি পুলিসের কাছে ধর্ষণের ঘটনার বিস্তারিত রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।
শিশুকন্যাটির মা বাবার সঙ্গে দুর্ব্যবহারের জন্য সাসপেন্ড করা হল গান্ধীনগর পুলিস স্টেশনের দুই পুলিসকে। ডিসিপি (পূর্ব) প্রভাকর এদিন জানান, "গান্ধীনগরের স্টেশন হাউস অফিসার ধরমপাল সিং এবং ফার্স্ট ইনভেস্টিগেটিং অফিসার মহাবীর সিং-এর বিরুদ্ধে অনভিপ্রেত ব্যবহারের অভিযোগ আসায় এঁদের সাসপেন্ড করা হল।"
অভিযোগ, এই দুই পুলিস কর্মী শিশুটির বাবাকে ২০০ টাকার বিনিময় মুখ বন্ধ রাখতে বলেন।
অন্যদিকে, বিক্ষোভকারীদের একজনকে চড় মারার জন্য দিল্লি পুলিসের এক অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার বাণী সিং আহলতকে সাসপেন্ড করা হয়।
এদিন সকালেই হাসপাতালে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে ১৭ বছরের এক ছাত্রীকে চড় মারেন এই এসিপি।
মঙ্গলবার থেকে নিখোঁজ এই শিশুটিকে বুধবার সন্ধেতে ওই দুষ্কৃতীর ফ্ল্যাট থেকে গোঙানির শব্দ শুনে তার পরিবারের লোকেরা তাকে উদ্ধার করে। ফ্ল্যাটটির মালিক পলাতক।