আদর্শ কেলেঙ্কারি মামলার জালে অশোক চহ্বান

Last Updated: Monday, April 30, 2012 - 16:57

আদর্শ সোসাইটি কেলেঙ্কারির ফাঁস ক্রমশই চেপে বসছে অশোক চহ্বানের গলায়! সিবিআই-এর পর এবার কারগিল যুদ্ধের বীর সেনানী এবং শহিদ পরিবারগুলির নামে নির্মীত মুম্বইয়ের এই বহুতলে ফ্ল্যাট বণ্টন দুর্নীতিকাণ্ড নিয়ে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর তরফে। মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চহ্বান-সহ মোট ১৪ জন অভিযুক্তের নাম রয়েছে এই মামলায়।
সোমবার বম্বে কোর্টে হাজির হয়ে ইডি`র আইনজীবী আর ভি দেশাই জানান, গত ৫ মার্চ আদর্শ কাণ্ডের আর্থিক কেলেঙ্কারির তদন্তকারী দলের পেশ করা `এনফোর্সমেন্ট কেস ইনফরমেশন রিপোর্ট`-এর ভিত্তিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বেআইনি আর্থিক লেনদেন প্রতিরোধ আইনের ৩ নম্বর ধারায় মামলা করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ১৩ মার্চ আদর্শ কেলেঙ্কারির তদন্ত রিপোর্ট মুম্বই হাইকোর্টে পেশ করে সিবিআই ও এনফোসর্মেন্ট দফতর। ইতিমধ্যেই ওই কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত ১৪ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর-ও দায়ের করেছে সিবিআই। এবার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চহ্বাণ-সহ সেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধেই মামলা করল ইডি।
মুম্বইয়ের কোলবায় আদর্শ হাউসিং সোসাইটি`তে ফ্ল্যাট বণ্টন সংক্রান্ত অনিয়মের পিছনে আর্থিক দুর্নীতির তথ্য জানতে বম্বে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছিলেন দুই সমাজকর্মী-প্রবীণ ওয়াতেগাঁওকর এবং সম্প্রিত সিং। এদিন বিচারপতি এস এ বোবাডে এবং বিচারপতি মৃদুলা ভাটকরকে নিয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চের সামনে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপের ব্যাপারে তথ্য প্রদান করা হয় ইডি`র তরফে।

অশোক চহ্বান ছাড়া ইডি`র মামলায় অন্য অভিযুক্তদের তালিকায় রয়েছেন, আদর্শ সোসাইটি`র সম্পাদক আর সি ঠাকুর, ব্রিগেডিয়ার (অবসরপ্রাপ্ত) এম এম ওয়াংচু, কংগ্রেসের প্রাক্তন বিধান পরিষদ সদস্য কানাইলাল গিদওয়ানি ও অবসরপ্রাপ্ত আমলা প্রদীপ ব্যাস। আদর্শ কাণ্ডে সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার ইতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছেন ৯ অভিযুক্ত। এই তালিকায় রয়েছেন ৩ অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল, এ আর কুমার, টি কে কল এবং দুই প্রাক্তন আইএএস জয়রাজ পাঠক ও রামচাঁদ তিওয়ারির নাম। ইডি-র তালিকাতেও ঠাঁই পেয়েছেন এঁরা।
প্রাক্তন সেনাদের জন্য ৩১ তলা আদর্শ আবাসন তৈরি করা হলেও নিজেদের আত্মীয়দের তা বিধি বহির্ভূতভাবে পাইয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ ওই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চহ্বান-সহ অন্যান্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে। আদর্শ আবাসন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ার কারণেই ২০১০ সালের নভেম্বর মাসে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রিত্ব ছাড়তে হয়েছিল অশোক চহ্বানকে। উল্লেখ্য, ১৯৭০ সাল থেকেই কোলবার আদর্শ আবাসন প্লট নিয়ে মহারাষ্ট্র সরকার ও কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছিল। শেষ পর্যন্ত নব্বইয়ের দশকের শেষে ওই জমিতে একটি বহুতল নির্মাণের বিষয়ে দু`তরফের সমঝোতা হয়।



First Published: Monday, April 30, 2012 - 16:57


comments powered by Disqus