আইন ভেঙে মন্ত্রীর সমতুল পদ সৃষ্টি, বিতর্কে গেহলট

ভঁবরি দেবি হত্যা মামলা আর বিভিন্ন জেলায় কৃষক বিক্ষোভের জেরে এমনিতেই যথেষ্ট বিপাকে মরুরাজ্যের কংগ্রেস সরকার। এরই মধ্যে শনিবার মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের অস্বস্তি বাড়াল রাজস্থান হাইকোর্ট।

Updated: Apr 21, 2012, 05:24 PM IST

ভঁবরি দেবি হত্যা মামলা আর বিভিন্ন জেলায় কৃষক বিক্ষোভের জেরে এমনিতেই যথেষ্ট বিপাকে মরুরাজ্যের কংগ্রেস সরকার। এরই মধ্যে শনিবার মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের অস্বস্তি বাড়াল রাজস্থান হাইকোর্ট। সংবিধানিক বিধি ভাঙার অভিযোগ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ গ্রহণ করে এ ব্যাপারে রাজ্য সরকারের কৈফিয়ত তলব করেছেন বিচারপতি অজয় রাস্তোগি। মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের বিরুদ্ধে অসাংবিধানিকভাবে মন্ত্রীর সম-মর্যাদাভুক্ত ১৩টি `পরিষদীয় সচিব` পদ সৃষ্টির অভিযোগ এনেছিলেন রাজ্যের তিন বিজেপি বিধায়ক। তারই ভিত্তিতে এই নোটিশ জারি করেছে হাইকোর্ট।

সংবিধানের ১৬৪(১-এ) ধারা অনুযায়ী কোনও রাজ্যের মোট মন্ত্রীর সংখ্যা নির্বাচিত বিধায়ক সংখ্যার ১৫ শতাংশের বেশি হতে পারবে না। সেই হিসেবে ২০০ বিধায়কের রাজ্য রাজস্থানে মোট মন্ত্রীর সংখ্যা সর্বাধিক ৩০ হতে পারে। বর্তমানে অশোক গেহলট মন্ত্রিসভার মোট সদস্যসংখ্যা ২৭। কিন্তু মন্ত্রীদের পাশাপাশি ১৩টি 'পার্লামেন্টরি সেক্রেটারি' নামের রাজনৈতিক পদ তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী গেহলট। মন্ত্রিদের সমস্ত সুযোগ-সুবিধাও বরাদ্দ হয়েছে তাঁদের জন্য। হাইকোর্টে আবেদনকারী তিন বিজেপি বিধায়ক- কালীচরম শরাফ, রাজপাল সিং এবং অশোক পারমণির অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্ত পুরোপুরি অসাংবিধানিক।

অন্যদিকে এদিনই সিবিআই-এর তরফে ভঁবরি দেবী হত্যা মামলার তৃতীয় চার্জশিট পেশ করা হয়েছে। ধৃত পুখরাজ, দীনেশ এবং রেশমারামের নাম রয়েছে এই চার্জশিটে। প্রসঙ্গত এই নিয়ে নার্স ভঁবরি দেবীর অপহরণ ও খুনের মামলায় মোট ১৭ জনের নামে জচার্শিট পেশ করল সিবিআই। এই তালিকায় রয়েছেন, প্রাক্তন মন্ত্রী মহীপাল মদেরনা, কংগ্রেস বিধায়ক মালখান সিং এবং তাঁর বোন ইন্দিরা বিশনই। ইন্দিরা বিশনই ছাড়া বাকি ১৬ জন অভিযুক্তি রয়েছেন সিবিআই হেফাজতে।