শ্রীনগর হামলার পিছনে হিসবুল মুজাহিদ্দিন, দিল্লি দুষছে পাকিস্তানকে

সকাল সারে দশটা। বনধ চলছে কাশ্মীরের রাজধানীতে। শুনশান শহর। আচমকাই ক্রিকেটারের বেশে সিআরপিএফ ক্যাম্পে ঢুকে পড়ে দুই জঙ্গি। তারপর শুধুই গুলি আর বেওনেটের শব্ধ। নিহত পাঁচ সেনা জাওয়ান। পাল্টা আক্রমণে পরাস্ত দুই ফিদাইন জঙ্গিও। আহত ৭।

Updated: Mar 13, 2013, 11:39 AM IST

সকাল সারে দশটা। বনধ চলছে কাশ্মীরের রাজধানীতে। শুনশান শহর। আচমকাই ক্রিকেটারের বেশে সিআরপিএফ ক্যাম্পে ঢুকে পড়ে দুই জঙ্গি। তারপর শুধুই গুলি আর বেওনেটের শব্ধ। নিহত পাঁচ সেনা জাওয়ান। পাল্টা আক্রমণে পরাস্ত দুই ফিদাইন জঙ্গিও। আহত ৭।
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের দাবি, সীমার ওপার থেকে পরিকল্পনা করা হয়েছিল এই হামলার। বনধের শ্রীনগরে আরও বেশি করে জনজীবনে প্রভাব ফেলতেই পাকিস্তান থেকে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্র সচিব আর কে সিং। ঘটনার দায় স্বীকার করে নিয়েছে জঙ্গি সংগঠন হিসবুল মুজাহিদ্দিন। দুই জঙ্গিই গুলির লড়াইয়ে মারা যায়। আর পি সিং সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, "প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, পাকিস্তানের তরফে হামলা চালানো হয়েছিল।" অন্য যে ৭ জাওয়ান আহত হয়েছেন তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে, তবে তাঁদের অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় বলেই জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র সচিব।
তিন বছর পর ফের জঙ্গি হামলার স্বীকার হল শ্রীনগর। আজ সকালে শ্রীনগরের বিমনায় সিআরপিএফ ক্যাম্পে হামলা চালায় জঙ্গিরা। জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষে ৫ সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে।
জঙ্গি হামলার মুখে পড়া ওই সিআরপিএফ ক্যাম্পের কাছেই একটি পাবলিক স্কুল রয়েছে। তবে এদিন স্কুল বন্ধ থাকায় কোনও ছাত্র-ছাত্রী আক্রান্ত হয়নি। গুলির লড়াই এখনও চলছে বলে জানা গিয়েছে। হামলার নিন্দা করলেন জম্মু কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা।