আডবাণী না, আমিই বাবরি মসজিদ ভাঙতে বলেছিলাম, স্বীকারোক্তি প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ রাম বিলাস বেদান্তির

১৯৯২ সালের ৬ই ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংসের জন্য সমবেত করসেবকদের 'উত্তেজিত' করতে কোনও 'প্ররোচনামূলক ভাষণ'ই দেননি 'লৌহমানব' লালকৃষ্ণ আডবাণী, সেই ভাষণ আসলে দিয়েছিলেন তিনি নিজে, আজ একথা স্বীকার করে নিলেন প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ রাম বিলাস বেদান্তি। বেদান্তি জানিয়েছেন, সেদিন তাঁরই কণ্ঠে শোনা গিয়েছিল, "এক ধাক্কা অউর দো, বাবরি মসজিদ টুট দো" স্লোগান। আর এই স্লোগান শুনেই 'রামপন্থী' করসেবকরা একের পর এক আঘাতে ভেঙে ফেলেছিল বাবরি মসজিদ। 'প্ররোচনামূলক ভাষণ' দিয়ে 'ফৌজদারি ষড়যন্ত্রে'র আওতা থেকে আডবাণীকে ক্লিনচিট দিয়ে রাম বিলাস বেদান্তি আরও বলেন যে, তিনি, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অশোক সিংহল এবং মহন্ত অভেদ্যনাথ যখন 'প্ররোচনা' দিচ্ছিলেন, তখন বরং আডবাণী, যোশী এবং বিজয় রাজে সিন্ধিয়ারা করসেবকদের 'শান্ত করার' চেষ্টা করছিলেন।

Updated: Apr 21, 2017, 10:07 PM IST
আডবাণী না, আমিই বাবরি মসজিদ ভাঙতে বলেছিলাম, স্বীকারোক্তি প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ রাম বিলাস বেদান্তির

ওয়েব ডেস্ক: ১৯৯২ সালের ৬ই ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংসের জন্য সমবেত করসেবকদের 'উত্তেজিত' করতে কোনও 'প্ররোচনামূলক ভাষণ'ই দেননি 'লৌহমানব' লালকৃষ্ণ আডবাণী, সেই ভাষণ আসলে দিয়েছিলেন তিনি নিজে, আজ একথা স্বীকার করে নিলেন প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ রাম বিলাস বেদান্তি। বেদান্তি জানিয়েছেন, সেদিন তাঁরই কণ্ঠে শোনা গিয়েছিল, "এক ধাক্কা অউর দো, বাবরি মসজিদ টুট দো" স্লোগান। আর এই স্লোগান শুনেই 'রামপন্থী' করসেবকরা একের পর এক আঘাতে ভেঙে ফেলেছিল বাবরি মসজিদ। 'প্ররোচনামূলক ভাষণ' দিয়ে 'ফৌজদারি ষড়যন্ত্রে'র আওতা থেকে আডবাণীকে ক্লিনচিট দিয়ে রাম বিলাস বেদান্তি আরও বলেন যে, তিনি, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অশোক সিংহল এবং মহন্ত অভেদ্যনাথ যখন 'প্ররোচনা' দিচ্ছিলেন, তখন বরং আডবাণী, যোশী এবং বিজয় রাজে সিন্ধিয়ারা করসেবকদের 'শান্ত করার' চেষ্টা করছিলেন।

প্রসঙ্গত, যে ১৩ জনের নামে বাবরি কাণ্ডে 'ফৌজদারি ষড়যন্ত্রে'র তদন্ত করার ছাড়পত্র পেয়েছে সিবিআই, তার মধ্যে অন্যতম হলেন রাম বিলাস বেদান্তি। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে সুপ্রিমকোর্টের রায় প্রকাশিত হওয়ার দুদিন বাদে 'হঠাত্‍ করে' কেন 'সত্য স্বীকারে'র ইচ্ছা হল বেদান্তির। উল্লেখ্য, গত কালই শৌনা গিয়েছে যে বর্তমান বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ দল হিসাবে আডবাণীর পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন। তাহলে কি সেই 'পাশে থাকার বার্তা'ই প্রতিফলিত হচ্ছে 'অপেক্ষাকৃত ছোট মাপে'র এই নেতার 'সত্য স্বীকারে'র মাধ্যমে, প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলে। (আরও পড়ুন- 'সঙ্গে আছে দল', বাবরিকাণ্ডে আডবাণীকে বার্তা বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের )