আয়কর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা বাড়ল

সাধারণ বাজেটকে জনমুখী চেহারা দিতে আয়কর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা বাড়াল দ্বিতীয় ইউপিএ সরকার। এদিন লোকসভায় ১০১২-১৩ অর্থবর্ষের সাধারণ বাজেট পেশ করতে গিয়ে অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়কে করমুক্ত করার কথা জানালেন।

Updated: Mar 16, 2012, 02:08 PM IST

সাধারণ বাজেটকে জনমুখী চেহারা দিতে আয়কর ছাড়ের উর্দ্ধসীমা বাড়াল দ্বিতীয় ইউপিএ সরকার। এদিন লোকসভায় ১০১২-১৩ অর্থবর্ষের সাধারণ বাজেট পেশ করতে গিয়ে অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়কে করমুক্ত করার কথা জানালেন। নয়া করবিধি অনুযায়ী ২ লক্ষ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা আয়ে ১০ শতাংশ, ৫ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকা আয়ে ২০ শতাংশ এবং ১০ লক্ষ টাকার বেশি আয়ে আয়কর ৩০ শতাংশ করা হয়েছে। এতদিন পর্যন্ত ৮ লক্ষ টাকা বেশি আয়ের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ আয়কর দিতে হত।
তা ছাড়া স্বাস্থ্যপরীক্ষার ক্ষেত্রে ৫০০০ টাকা এবং ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে কর ছাড়ের প্রস্তাব রয়েছে। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, কর বাবদ বার্ষিক আয় ৭ লক্ষ ৭১ হাজার কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে কেন্দ্র। পরিকাঠামো বন্ডের মাধ্যমে তোলা হবে ৬০ হাজার কোটি।
১৭টি পরিষেবা ক্ষেত্র বাদে বাকি সমস্ত পরিষেবা ক্ষেত্রকে করের আওতায় আনা হয়েছে। সেই সঙ্গে পরিষেবা করের হার ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২ শতাংশ করার কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। একই হারে বাড়ানো হয়েছে অন্তঃশুল্ক। অন্যদিকে পেট্রোপণ্যে উত্‍পাদন শুল্ক ৮ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে বাণিজ্যিক কর কাঠামো। শেয়ার বাজারে ১০ লক্ষ টাকা আয়ের ক্ষেত্রে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করলে বছরে ৫০ শতাংশ কর ছাড়ের সুবিধা মিলবে।
প্রাথমিক ভাবে চলতি আর্থিক বছরে রাজকোষ ঘাটতির পরিমাণ জিডিপি'র ৪.৫ শতাংশ হবে বলে মনে করা হলেও কার্যক্ষেত্রে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫.১ শতাংশ। এই পরিস্থিতিতে বিলগ্নীকরণ ও বাজার উন্মুক্তকরণের পাশাপাশি অন্তঃশুল্ক খাতেও আয় বাড়াতে চাইছে সরকার। পাশাপাশি এদিন কালো টাকা উদ্ধারের ক্ষেত্রে কড়া আইন বলবত্‍ করার উপরও জোর দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায়।