অভিযোগ অস্বীকার পাক ডিজিএমও-র

ভারতীয় ডিরেক্টর জেনারেল অফ মিলিটারি অপরেশন (ডিজিএমও) বুধবার পাকিস্তানি অধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। সেখানেই জম্মু-কাশ্মীর সীমান্তে অনুপ্রবেশকারী পাক সেনার হাতে নিহত দুই জওয়ানের মৃত্যুর অভিযোগ করেছেন ভারতের ডিজিএমও লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিনোদ ভাটিয়া। আলোচনায় পাক ডিজিএমও জেনারেল আশরফ নাদিন শান্তি চুক্তি ভঙ্গ করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বলে সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে। 

Updated: Jan 9, 2013, 04:23 PM IST

ভারতীয় ডিরেক্টর জেনারেল অফ মিলিটারি অপরেশন (ডিজিএমও) বুধবার পাকিস্তানি অধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। সেখানেই জম্মু-কাশ্মীর সীমান্তে অনুপ্রবেশকারী পাক সেনার হাতে নিহত দুই জওয়ানের মৃত্যুর অভিযোগ করেছেন ভারতের ডিজিএমও লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিনোদ ভাটিয়া। আলোচনায় পাক ডিজিএমও জেনারেল আশরফ নাদিন শান্তি চুক্তি ভঙ্গ করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বলে সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে।  
ভারত-পাক সীমান্তে পাক সেনার হাতে দুই ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যুর ঘটনায় এখন পাক সরকারের বিবৃতির অপেক্ষায় নয়াদিল্লি। বুধবার বিদেশমন্ত্রী সলমন খুরশিদ জানিয়েছেন, গতকালের বর্বরোচিত ঘটনাকে ভারত যে সহজে মেনে নেবে না তা পাক প্রশাসনকে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। খুরশিদ বলেন, "আমরা আমাদের প্রতিবাদ জানিয়েছি।"
যদিও পাক সেনার তরফে গতকালের ঘটনার কথা অস্বীকার করা হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে এখনও কোনও জবাব দেয়নি ইসলামাবাদ। এই ধরণের ঘটনায় দু`দেশের শান্তি চুক্তির ক্ষেত্রে বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়বে বলেই মনে করেছেন বিদেশমন্ত্রী।
ভারতীয় জওয়ানদের সঙ্গে নৃশংসভাবে হত্যা করার কড়া নিন্দা করেছেন খুরশিদ। তিনি বলেন, "সেনাদের মৃতদেহে যেভাবে অঙ্গহানি করা হয়েছে, তা উদ্বেগের বিষয়। এটা মেনে নেওয়া যায় না।" পাক সেনাবাহিনীর এই ন্যক্কারজনক আচরণের সমালোচনা করেছে ভারতীয় জনতা পার্টিও। বিজেপি মুখপাত্র তরুণ বিজয় এ দিন জানান, "পাকিস্তানের সঙ্গে সমস্ত রকম দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া উচিত ভারতের।" এই ঘটনায় পাকিস্তানের কুচক্রি মনোভাব স্পষ্ট হয়ে গেল বলে জানিয়েছেন বিজয়।