চিন-পাকিস্তান পরমাণু চুক্তি নিয়ে উদ্বেগে ভারত

চিন-পাকিস্তান অসামরিক পরমাণু চুক্তি নিয়ে উদ্বেগে ভারত। চাশমা বিদ্যুত্ কমপ্লেক্সের জন্য পাকিস্তানকে দুটি পরমাণু চুল্লি বিক্রি করতে চলেছে চিন। ভারতের আশঙ্কা, ওই পরমাণু চুল্লি সামরিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করবে পাকিস্তান। চিনের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের কাছে বিষয়টি নিয়ে আপত্তি জানাবেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। আগামী সপ্তাহেই চিন যাচ্ছেন তিনি।

Updated: Oct 16, 2013, 10:46 AM IST

চিন-পাকিস্তান অসামরিক পরমাণু চুক্তি নিয়ে উদ্বেগে ভারত। চাশমা বিদ্যুত্ কমপ্লেক্সের জন্য পাকিস্তানকে দুটি পরমাণু চুল্লি বিক্রি করতে চলেছে চিন। ভারতের আশঙ্কা, ওই পরমাণু চুল্লি সামরিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করবে পাকিস্তান। চিনের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের কাছে বিষয়টি নিয়ে আপত্তি জানাবেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। আগামী সপ্তাহেই চিন যাচ্ছেন তিনি।
এগারোশো মেগাওয়াট বিদ্যুত্ উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন দুটি পরমাণু চুল্লি। বেচবে চিন। কিনবে পাকিস্তান। এই বেচাকেনাকে কেন্দ্র করে তোলপাড় পরমাণু বিশ্ব। অস্বস্তিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তার থেকেও বেশি অস্বস্তিতে ভারত।

২০০৮-এ ভারত-মার্কিন অসামরিক পরমাণু চুক্তির বিরোধিতা করেছিল চিন। পাঁচ বছর বাদে, সেই চিনই চাশমা নিউক্লিয়ার পাওয়ার কমপ্লেক্সের জন্য পাকিস্তানকে দুটি পরমাণু চুল্লি বিক্রি করতে চলেছে। এনএসজি ভুক্ত দেশগুলির আপত্তির তোয়াক্কা না করেই। চিনের দাবি, ২০০৪ এনএসজি -র সদস্য হওয়ার বহু আগেই তারা পাকিস্তানের সঙ্গে এই চুক্তি করেছিল। যদিও, সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত পাকিস্তানে এই পরমাণু উদ্যোগ কতটা অসামরিক থাকবে তা নিয়ে সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা।
অস্বস্তিকর এই পরিবেশে আগামী সপ্তাহেই চিনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। সিনো-পাক পরমাণু চুক্তি নিয়ে ভারতের অসন্তোষ তিনি বেজিংকে জানাবেন বলেই দিল্লির সচিবালয় সূত্রে খবর।