ভারত কি সাইবার বিশ্বযুদ্ধের প্রভাব ঠেকাতে পারবে?

বিশ্বব্যাপী অভূতপূর্ব সাইবার অ্যাটাকের ঠিক পরের দিনই ভারতের নেটিজেনদের আশ্বস্ত করে টেলিকম মন্ত্রী কপিল সিব্বল জানান এদেশে এই আক্রমণের প্রভাব বিশেষ পরবে না। তিনি বলেন, "এখানে এর সামান্যই প্রভাব পড়বে। শুধুমাত্র বিএসএনএল পরিষেবাই এতে বিপর্যস্ত হতে পারে। তাও মূলত দক্ষিণ ভারতে। উত্তর ভারতের ইন্টারনেট পরিষেবা মোটের উপর স্থিতিশীল থাকবে। বেসরকারী সংস্থাগুলির পরিষেবায় কোনও প্রভাব পড়বে না।" এ দেশে ব্যবহৃত ডিএনএস (ডোমেইন নেম সিসটেম) সার্ভারগুলি মূলত ভারতেই অবস্থিত বলে জলতলের নিচের এই আক্রমণে পরিষেবা ব্যাহত হবে না বলে জানান সিব্বল।

Updated: Mar 29, 2013, 12:17 PM IST

বিশ্বব্যাপী অভূতপূর্ব সাইবার অ্যাটাকের ঠিক পরের দিনই ভারতের নেটিজেনদের আশ্বস্ত করে টেলিকম মন্ত্রী কপিল সিব্বল জানান এদেশে এই আক্রমণের প্রভাব বিশেষ পরবে না।
তিনি বলেন, "এখানে এর সামান্যই প্রভাব পড়বে। শুধুমাত্র বিএসএনএল পরিষেবাই এতে বিপর্যস্ত হতে পারে। তাও মূলত দক্ষিণ ভারতে। উত্তর ভারতের ইন্টারনেট পরিষেবা মোটের উপর স্থিতিশীল থাকবে। বেসরকারী সংস্থাগুলির পরিষেবায় কোনও প্রভাব পড়বে না।" এ দেশে ব্যবহৃত ডিএনএস (ডোমেইন নেম সিসটেম) সার্ভারগুলি মূলত ভারতেই অবস্থিত বলে জলতলের নিচের এই আক্রমণে পরিষেবা ব্যাহত হবে না বলে জানান সিব্বল।
সরকারের তরফ থেকে এই মুহূর্তে কোনও নির্দেশিকা জারি করা হবে না বলেও জানান সিব্বল। তিনি বলেন, এই প্রভাব দীর্ঘ মেয়াদি হলেই নির্দেশিকা দেবে সরকার। তবে সন্ধে নাগাদ এই বিষয়টি আরও পরিষ্কার হবে।
বৃহস্পতিবারই একাধিক সাইবার গোষ্ঠীকে কালো তালকাভুক্ত করার জন্য স্প্যাম প্রতিহতকারী সাইট `স্প্যামহাউস`-এর বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করায় বিশ্বজাল জগতে ব্যাপক আক্রমণ নেমে আসে। এই আক্রমণে (একে বাজুকা আক্রমণ বলা হচ্ছে) ব্যাপক হারে পরিষেবা ব্যাহত হয়। এই সময়ে বিস্তীর্ণ এলাকা জুরে ইন্টারনেট `ডেড` পাওয়া গিয়েছে।