বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা, কর্নাটকে বেকায়দার বিজেপি

Last Updated: Monday, December 10, 2012 - 21:57

কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পার নবগঠিত দল কর্নাটক জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ার জন্য শাস্তির মুখে পড়তে পারেন রাজ্যের ১৩ জন বিধায়ক। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী জগদীশ শেট্টার জানিয়ে দিয়েছেন দলভাঙা ওই ১৩ জন বিধায়কের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে চলেছে রাজ্য বিজেপি। এদিন শেট্টার সাংবাদিকদের জানান আগামী ১২ তারিখের বৈঠকে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে দল।
প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর নবগঠিত দলে ১৩ জন বিধায়ক যোগদানের ফলে কর্নাটক বিধানসভায় এই মুহূর্তে সংখ্যা সঙ্কটে বিজেপি। ইয়েদ্দুরাপ্পার চ্যালেঞ্জ, ময়দানে নমে মানুষের রায় নিন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী জগদীশ শেট্টার। বিপাকে পড়েও অবশ্য সমস্যার জট খোলা যাবে বলে আশা রাখছে বিজেপি নেতৃত্বের ।
নিজেদের দুর্নীতিমুক্ত ইমেজ ধরে রাখতে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইয়েদ্দুরাপ্পাকে সরিয়ে দেওয়ার পর থেকেই শুরু যাবতীয় জটিলতা। বিজেপি না চাইলেও অবশ্য রাজ্য রাজনীতির ক্ষমতার অন্যতম ভরকেন্দ্র হয়ে থেকে গিয়েছেন এই লিঙ্গায়েত নেতা। আর তাই খনি দুর্নীতির জেরে গ্রেফতার হওয়ার পর জেল থেকে ছাড়া পেতেই ফের মুখ্যমন্ত্রিত্বের দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন বি এস ইয়েদ্দুরাপ্পা। দিন যত এগিয়েছে ততই কণ্টকময় হয়েছে দক্ষিণে ফোটা পদ্মের মৃণাল। বিজেপির অস্বস্তি বাড়িয়ে নতুন দল গঠন করেছেন ইয়েদ্দুরাপ্পা। এবার সঙ্কট আরও ঘোরতর। ইয়েদ্দুরাপ্পার দলে নাম লিখিয়েছেন তেরোজন বিজেপি বিধায়ক। আর এতেই কর্নাটক বিধানসভায় স্পষ্টতই সংখ্যা সঙ্কটে পড়ে গিয়েছে জগদীশ শেট্টার সরকার। দুশো চব্বিশ আসন বিশিষ্ট বিধানসভায় বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ছিল একশো আঠেরো। কিন্তু ১৩ জন বিধায়ক ইয়েদ্দুরাপ্পার কর্নাটক জনতা পার্টি বা কেজিপি-তে যোগ দেওয়ায় জোর ধাক্কা খেয়েছে শেট্টার সরকার। ইয়েদুরাপ্পার দাবি, ক্ষমতায় না থেকে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর উচিত মানুষের রায় নেওয়া।
 
কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের আশ্বাসে ভর করে আপাতত পদত্যাগের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন শেট্টার। আর এই ঘোলা জলেই ফের মাছ ধরতে নেমে পড়েছে কংগ্রেস। এদিকে, ইয়েদ্দুরাপ্পার সঙ্গে দেখা করেছেন বিজেপির আরও একুশজন বিধায়ক এবং চার সাংসদ। শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ এনে দল থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে টুমকুরের সাংসদ জিএস বাসবরাজুকে। ইয়েদ্দুরাপ্পা ঘনিষ্ঠ পি জে পুট্টাস্বামীকে মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু, এত করেও কি সরকার টিকিয়ে রাখতে পারবেন তিনি? উত্তর খুঁজতে মরিয়া বিজেপির শীর্ষনেতৃত্বও।



First Published: Monday, December 10, 2012 - 21:57


comments powered by Disqus