লোকপালের বিরোধিতায় বামেরা

লোকসভায় লোকপাল বিল পাশের বিরোধিতা করল বামেরা। এই বিল পাশ করিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস রাজ্যের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে মন্তব্য করেন সিপিআইএম নেতা শ্যামল চক্রবর্তী। লোকসভায় গতকাল সংবিধান সংশোধনী বিল পাশ করাতে ব্যর্থ হয় সরকার।

Updated: Dec 28, 2011, 07:11 PM IST

এই মুহূর্তে লোকপাল বিলের ক্ষেত্রে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সংশোধনী। বামেদের আনা সবচেয়ে বড় সংশোধনী কর্পোরেট ক্ষেত্রকে লোকপালের আওতায় আনতে হবে। শুধু বামেদেরই নয়, বিরোধীদের কোনও সংশোধনীই গ্রহণ করেনি সরকারপক্ষ। তৃণমূল কংগ্রেসও বিরোধীদের বেশ কিছু সংশোধনীকে মৌখিকভাবে সমর্থন করছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও গতকাল লোকসভায় বিলের পক্ষেই রায় দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বামেদের অভিযোগ, গুরুত্বপূর্ণ এই ইস্যুতে দ্বিচারিতা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। লোকসভায় পাস হয়েছে লোকপাল বিল। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠতার অভাবে পাস হয়নি সংবিধান সংশোধনী বিল। পাস হয়েছে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বের লোকপাল বিল। প্রস্তাবিত নতুন আইনের আওতায় রাখা হয়নি কর্পোরেট ক্ষেত্রকে। বিলের আওতার বাইরে কর্পোরেট ক্ষেত্রকে রাখায় লোকপাল বিলের কার্যকারিতা খর্ব হয়েছে বলে মনে করেন সিপিআই সাধারণ সম্পাদক এবি বর্ধন। তাঁর অভিযোগ, শাসক দল এবং কর্পোরেট সংস্থাগুলির মধ্যে দুর্নীতির বীজ রয়েছে।

এই প্রসঙ্গে সিপিআইএম সাংসদ সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, সরকার চায়নি বলেই বিল পাস করতে পারেনি। বিরোধীদের দোষারোপ করে কোনও লাভ নেই। সিপিআইএম রাজ্য কমিটির সম্পাদক বিমান বসুর মতে, লোকপালের আওতায় কর্পোরেট ক্ষেত্রকে যুক্ত করা না হলে প্রস্তাবিত নতুন আইন অর্থহীন হয়ে যাবে।
বৃহস্পতিবার আবার রাজ্যসভায় পেশ হবে লোকপাল বিল। আলোচনায় বামেরা আবার তাদের সংশোধনী প্রস্তাব তুলবে।