রাজ্যসভায় পেশের পরই সিলেক্ট কমিটিতে লোকপাল বিল

রাজ্যসভায় পেশের পরই সিলেক্ট কমিটিতে লোকপাল বিল

রাজ্যসভায় পেশের পরই সিলেক্ট কমিটিতে লোকপাল বিলরাজনৈতিক ঐকমত্য দূর অস্ত, লোকপাল বিলের খসড়া নিয়ে এখনও পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেসের মতো শরিক দলগুলিরও আস্থা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে কংগ্রেস নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় রাজ্যসভায় বিলের খসড়া পেশ করলেও তা অনুমদোনের জন্য জন্য ভোটাভুটির ঝুঁকি নিতে চাইছে না মনমোহন সরকার। প্রয়োজনীয় সংশোধনের জন্য লোকপাল বিলের খসড়া পাঠিয়ে দেওয়া হল সদ্যগঠিত ১৫ সদস্যের সিলেক্ট কমিটিতে। আগামীকালই শেষ হচ্ছে সংসদের বাজেট অধিবেশনের দ্বিতীয় পর্ব। ফলে অন্তত বাদল অধিবেশন পর্যন্ত ঝুলে রইল বহুচর্চিত দুর্নীতি বিরোধী বিলের ভবিষ্যত্‍!

গত ২৭ ডিসেম্বর দিনভর বিতর্কের পর লোকসভায় পাস হয়েছিল লোকপাল বিল। যদিও শরিক ও সমর্থক দলগুলি বেঁকে বসায় শেষ পর্যন্ত লোকপালকে সাংবিধানিক মর্যাদা দিতে ব্যর্থ হয় মনমোহন সিং সরকার। কিন্তু লোকসভায় পাস হলেও এখনও পর্যন্ত সংসদের উচ্চকক্ষের অনুমোদন পায়নি লোকপাল বিল। ২৯ ডিসেম্বর, সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শেষ দিন মধ্যরাত পর্যন্ত রাজ্যসভায় বিতর্কের পরও এ ব্যাপারে কাঙ্খিত রফাসূত্রের সন্ধান মেলেনি। লোকসভায় লোকপাল বিলকে সমর্থন করলেও বিলের খসড়ায় লোকাযুক্ত নিয়োগের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপের সুযোগ রয়েছে, এই অভিযোগ তুলে রাজ্যসভায় সোচ্চার হন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা।

বস্তুত, এদিনও একই ইস্যু নিয়ে সংসদে সরব হন বিরোধীরা। বিজেপি`র তরফে সিবিআই-এর ডিরেক্টর নিয়োগ ক্ষমতা কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে দেওয়ার প্রস্তাবেরও তীব্র বিরোধিতা করা হয়। কেন্দ্রীয় সংসদীয় বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ভি নারায়ণস্বামী ঐকমত্যের ভিত্তিতে বিল পাসে আবেদন জানালেও তা মানতে চাননি বিরোধীরা। এদিন অধিবেশনের শুরুতে কেন্দ্রীয় সংসদীয়মন্ত্রী পবনকুমার বনশল লোকপাল বিলের খসড়া নিয়ে ঐক্যমত গড়ে তোলার জন্য বিজেপির রাজ্যসভার নেতা অরুণ জেটলির সঙ্গে বৈঠক করলেও তাতে চিঁড়ে ভেজেনি। বরং সরকার সমর্থক সমাজবাদী পার্টির সাংসদরা এদিন ভোটাভুটির আগে বিলের খসড়া নিয়ে সিলেক্ট কমিটিতে আলোচনার দাবি জানান।






First Published: Monday, May 21, 2012, 20:46


comments powered by Disqus