সমব্যথায়ও সমালোচিত মুখ্যমন্ত্রীর ফেসবুক পোস্ট

সমব্যথায়ও সমালোচিত মুখ্যমন্ত্রীর ফেসবুক পোস্ট

সমব্যথায়ও সমালোচিত মুখ্যমন্ত্রীর ফেসবুক পোস্টদিল্লিতে নির্যাতিতা তরুণীর মৃত্যুর ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুকে শোকবার্তা পোস্ট করেছেন তিনি। তারপরই শুরু হয়েছে সমালোচনা। রাজ্যে ধর্ষণের ঘটনার প্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর সরকারের ভূমিকার সমালোচনা করে ফেসবুকে বহু মানুষ সরব হয়েছেন।

চলন্ত বাসে গণধর্ষণ এবং তারপরে নির্মম প্রহারের জেরে মৃত্যু হয়েছে তরুণীর। তরুণীর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুকে একটি শোকবার্তা পোস্ট করেছেন তিনি। তাতে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন ----

"দিল্লিতে ঘৃণ্য ও বর্বর আক্রমণের শিকার ওই তরুণী আজ মারা গিয়েছেন। তাঁর মৃত্যু চরম দুর্ভাগ্যজনক এবং দুঃখের। আমরা গভীর ভাবে শোকাহত। এই ঘটনা নৃশংসতার যাবতীয় সীমা লঙ্ঘন করেছে। দোষীদের কড়া শাস্তি নিশ্চিত করতে এবার কঠোর আইন তৈরি করা প্রয়োজন, যাতে ভবিষ্যতে এমন কাজ করার আগে কেউ তার পরিণতি সম্পর্কে ভাবে। কঠোর আইন পাস করানোর জন্য কেন্দ্র প্রয়োজনে সংসদের বিশেষ অধিবেশন ডাকতে পারে। আমরা সর্বতো ভাবে সহযোগিতা করব। পাশাপাশি এ ধরনের অপরাধ যাতে আর না ঘটে, সে জন্য জনমানসে সচেতনতা, দায়িত্ব এবং স্পর্শকাতরতা বাড়াতে হবে। এই দুঃখের সময় মৃতার পরিবারকে গভীর শোক জানাই।"

ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রীর এই শোকবার্তা সামনে আসার পরই কিন্তু সমালোচনার ঝড় উঠেছে। ধর্ষণের ঘটনায় দ্বিচারিতার অভিযোগ এনে মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অনেকে।

উজ্জ্বল দত্ত: আপনার কী এসে যায়? আপনার কাছে তো সব ধর্ষণের ঘটনাই মিথ্যা, রং চড়ানো, এবং ধোয়া তুলসী পাতা সরকারকে বদনাম করার জন্য সাজানো। মুখ বন্ধ রাখুন। আর হ্যাঁ, একটা কথা। আমি কিন্তু মাওবাদী নই। 

শিবাজি দেবনাথ: দিদি, দয়া করে আপনার দলের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারকে শাস্তি দিন। তাঁর মানুষ হওয়ার কোনও যোগ্যতাই নেই।

রক্তিম ঘোষ: পার্ক স্ট্রিটের ধর্ষিতাকে আগে বিচার দিন। আর ওনার চরিত্রের দিকে আঙুল তোলা বন্ধ করতে বলুন।

জুনা কিমওয়াহব: বেশ লম্বা-চওড়া আপডেট। পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে কী হয়েছিল, তা সবাই জানে ম্যাডাম ...! তারপরেও আর এসব কথা বলবেন না।

সৌরভ দাস: আমি নিজে তৃণমূলের সমর্থক। তবু বাধ্য হয়ে বলছি, আপনি যে এত জ্ঞান দিচ্ছেন, আপনার নিজের রাজ্যের অবস্থা জানেন? ... আপনি ফেসবুকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে না গিয়ে, আগে নিজের রাজ্য দেখুন। নইলে কিছু দিনের মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ ধর্ষণের ঘটনায় গিনেস বুকে নাম লেখাবে।

মৌমিতা চক্রবর্তী: পার্ক স্ট্রিটের নির্যাতিতার প্রতি কি কোনও সমবেদনা নেই, কারণ তিনি তো মারা যাননি!

বর্ণালি ঘোষ: দিদি, আপনি এত কথা বলছেন। কিন্তু আপনি মহিলা হয়ে পার্ক স্ট্রিটের ঘটনাকে সাজানো ঘটনা বলেছেন। ... দিদি, এবার আপনি একটু চোখ খুলে দেখুন।

সুরঞ্জন ঘোষ: কথার চেয়ে কাজের জোর বেশি, আশা করি আপনি জানেন

অমল মাঝি: নিজের ঘরেই ছিদ্র। আর লোকের বাড়ির দিকে আঙুল তুলে কী হবে!!!

জয়জিত ভৌমিক: আমাদের মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর রাজ্যে যদি দিল্লির ঘটনাটা ঘটত, তাহলে তিনি কত টাকা ক্ষতিপূরণ দিতেন????

সৌরভ মিত্র: পার্ক স্ট্রিট কাণ্ডে দোষীদেরও চরম শাস্তি চাই

নির্মাল্য শেঠ: ধর্ষণকে কি পশ্চিমবঙ্গে সাজানো এবং দিল্লিতে ধর্ষণ বলে!!

সুফল সরকার: দিল্লিরটাও মিথ্যা। সব পাবলিকের সাজানো।  

First Published: Saturday, December 29, 2012, 21:35


comments powered by Disqus