থানার সামনে গায়ে অগুন দিল যুবক

থানার সামনে গায়ে অগুন দিল যুবক

থানার সামনে গায়ে অগুন দিল যুবকসোমবার সন্ধেতে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিসি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ এনে কড়েয়া থানার সামনেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক যুবক। অগ্নিদগ্ধ  অবস্থায় তাঁকে ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। মাসখানেক আগে দক্ষিণ কলকাতার পাম অ্যাভিনউতে একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিসের ঘনিষ্ঠ। সেকারণেই তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না। এই ক্ষোভ জানিয়ে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই যুবক।

কাল কড়েয়া থানার সামনে এক যুবক হঠাত্‍‍ই গায়ে আগুন দেয়। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় থানার সামনেই ছটফট করতে থাকে সে। যুবককে ওই অবস্থায় দেখতে পেয়ে ছুটে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। জানা যায় যুবকের  নাম মীর আমিনুল ইসলাম। বাড়ি দক্ষিণ কলকাতার পাম অ্যাভিনিউতে। মাসখানেক আগে ওই এলাকায় একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছিল। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত সাহাজাদা বক্স পুলিসের ঘনিষ্ঠ। সেকারণেই তাকে আড়াল করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ।

অভিযুক্তকে গ্রেফতারের দাবিতে বারবার থানায় যান স্থানীয় যুবকরা। কিন্তু মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতারের পরিবর্তে অভিযোগকারীদের বিরুদ্ধেই বিভিন্ন মামলা শুরু করে পুলিস। সাহাজাদার বাড়িতে হামলা ও স্ত্রীকে নিগ্রহেরও অভিযোগ রয়েছে মীর আমিনুল ইসলাম সহ পাঁচ যুবকের বিরুদ্ধে।

পুলিসি নিষ্ক্রিয়তা ও হয়রানির অভিযোগে থানার সামনেই আত্মহত্যার চেষ্টা করে  মীর আমিনুল ইসলাম। ঘটনাস্থল থেকে মেলে একটি সুইসাইড নোটও।

অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ন্যাশানাল মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর কড়েয়া থানার পুলিসকর্মীরা হাসপাতালে পৌঁছলে তাঁদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয় যুবকের পরিবারের সদস্যদের। ওয়ার্ডের মধ্যেই মারধর করা হয় পুলিসকর্মীদের। পরে হাসপাতালের বাইরেও একদফা পুলিসকর্মীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় আমিনুলের আত্মীয়দের।
 








First Published: Tuesday, December 04, 2012, 10:23


comments powered by Disqus