সাংসদদের `খুনি` বলে নয়া বিতর্কে রামদেব

মাসকয়েক আগে নানা অপরাধমূলক মামলায় সাংসদদের জড়িত থাকার প্রসঙ্গ তুলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রবল সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন টিম আন্নার অন্যতম সদস্য অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এবার যোগগুরু রামদেবের ক্ষেত্রেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল।

Updated: May 2, 2012, 04:24 PM IST

মাসকয়েক আগে নানা অপরাধমূলক মামলায় সাংসদদের জড়িত থাকার প্রসঙ্গ তুলে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রবল সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন টিম আন্নার অন্যতম সদস্য অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এবার যোগগুরু রামদেবের ক্ষেত্রেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল।
বুধবার ছত্তিশগড়ের দুর্গ শহরে নিজের `ভারত নির্মাণ যাত্রা` উপলক্ষ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রামদেব বলেন, সংসদ এখন কিছু খুনি, লুঠেরা, মুর্খ আর দানবদের বসার জায়গা হয়ে উঠেছে। ভাল লোক কিছু থাকলেও তাঁদের সংখ্যা নেহাত্‍‌ই অকিঞ্চিত্‍কর বলেও জানান রামদেব। প্রত্যাশিতভাবেই রামদেবের এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে দলমত নির্বিশেষে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাংসদরা। লোকসভার স্পিকার মীরা কুমার থেকে বিজেপি`র ক্রিকেটার সাংসদ কীর্তি আজাদ- রামদেবের সমালোচনার পিছিয়ে থাকেননি কেউই।
যোগগুরুর বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে আরজেডি সুপ্রিমো লালুপ্রসাদ যাদব বলেছেন, "রামদেব গুরুতর মনোবিকলনের শিকার। তিনি হতাশায় ভুগছেন"। কংগ্রেসের রাজ্যসভা সাংসদ সত্যব্রত চতুর্বেদী মন্তব্য, "আমাদের বাবা রামদেবের সার্টিফিকেটের কোনও প্রয়োজন নেই। জনগণ আমাদের নির্বাচিত করেছেন। আমাদের দায়বদ্ধতা জনতার দরবারে"। অন্যদিকে সমাজবাদী পার্টির অন্যতম সাধারণ সম্পদক মোহন সিংহ বলেছেন, রামদেব গেরুয়া বসন পরে নিজেকে সাধু বলে দাবি করলেও তাঁর আচার-আচরণ মোটেও সাধুসুলভ নয়। একধাপ এগিয়ে উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেস সাংসদ জগদম্বিকা পাল সংসদের মর্যাদা ও গরিমায় আঘাত করার জন্য রামদেবের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের প্রস্তাব এনে তাঁকে ভর্ত্‍‌সনার দাবি তুলেছেন।