মোদীকে নিয়ে আপোস নয়, জানিয়ে দিল বিজেপি

Last Updated: Sunday, June 16, 2013 - 17:41

নরেন্দ্র মোদী ইস্যুতে সতেরো বছরের এনডিএ জোট ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছে জেডিইউ। নীতীশ কুমার সিদ্ধান্ত শোনানোর পর পাল্টা জবাব দিয়েছে বিজেপিও। এ দিন বিজেপর মুখপাত্র মুখতার আব্বাস নাকভি জানান, নরেন্দ্র মোদী প্রসঙ্গে কোনও আপোস করা হবে না। নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে জোট যদি আবার ভাঙে, তাহলেও আপোস করবে না বিজেপি।
তবে জেডিইউ সঙ্গ ছাড়ায় এনডিএ-র ক্ষতি হবে বলে মনে করছে প্রতিক্রিয়া শিবসেনা। দলীয় মুখপাত্র সঞ্জয় রাউতের আক্ষেপ, এতদিন যাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে জেডিইউ, এবার হয়তো তাদের সঙ্গেই হাত মেলাবে। বিজেপি নেতা শাহনওয়াজ হুসেনও বলেন, জেডিইউয়ের সঙ্গে জোট টিকিয়ে রাখার সবরকম চেষ্টা করেছে বিজেপি।
অন্যদিকে, পাটনায় আজ নরেন্দ্র মোদীর নাম না করেই বিজেপিতে তাঁর উত্থানের সমালোচনা করেন জেডিইউ সভাপতি শরদ যাদব। জানিয়ে দেন, ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রশ্নে তাঁদের অবস্থান পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। বিহারের বিজেপি নেতা সুশীল মোদীর পাল্টা অভিযোগ, প্রয়োজনে সমস্ত রাজনৈতিক দলই বিজেপির হাত ধরে। তারপর প্রয়োজন ফুরলোই বিজেপির নেতাদের ওপর সাম্প্রদায়িকতার তকমা দেয়। এনডিএ-র সঙ্গত্যাগের পর মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের ইস্তফা দাবি করেন তিনি। তাঁর যুক্তি, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি-জেডিইউ জোটের মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী হিসেবেই মানুষের জনাদেশ পেয়েছেন নীতীশ কুমার। জোট ভেঙে সেই জনাদেশের তিনি অপমান করেছেন। তাই নীতীশ কুমারের পদত্যাগ করা উচিত। জোট ভাঙায়, জেডিইউয়ের বিরুদ্ধে বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ তুলে ১৮ জুন বিহার বনধের ডাক দিয়েছে বিজেপি।  
এনডিএ-র সঙ্গে জোট ভাঙায়, নীতীশ কুমারের কড়া সমালোচনা করলেন জেডিইউয়ের প্রাক্তন সভানেত্রী জয়া জেটলি। তাঁর অভিযোগ, কেবল নিজের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই সতেরো বছরের পুরনো সম্পর্ক ভেঙে দিচ্ছেন নীতীশ কুমার। সংখ্যালঘু ভোটকে নজরে রেখেই জোট ভাঙার নাটক করছেন নীতীশ কুমার। অভিযোগ করলেন আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদ যাদব। তাঁর দাবি, বিহারের মানুষ জেডিইউ ও বিজেপির স্বরূপ চিনে ফেলেছে। ভোটের লড়াইয়ে দুটি রাজনৈতিক দলকেই মানুষ উপযুক্ত শিক্ষা দেবেন বলেও দাবি করেছেন লালুপ্রসাদ যাদব।



First Published: Sunday, June 16, 2013 - 17:41


comments powered by Disqus