এবার কার্টুন আঁকার অপরাধে জেল হেফাজতের নির্দেশ মুম্বই আদালতে

কার্টুন কাণ্ডের ছায়া এবার মুম্বইতে। বিতর্কিত কার্টুন আঁকার জন্য কার্টুনিস্ট অসীম ত্রিবেদীকে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দিল মুম্বইয়ের আদালত। গত ডিসেম্বর মাসে বান্দ্রা-কুরলায় আন্না হাজারের আন্দোলনে যোগ দিয়ে তিনটি কার্টুন আঁকেন ওই কার্টুনিস্ট।

Updated: Sep 10, 2012, 10:00 AM IST

কার্টুন কাণ্ডের ছায়া এবার মুম্বইতে। বিতর্কিত কার্টুন আঁকার জন্য কার্টুনিস্ট অসীম ত্রিবেদীকে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিস হেফাজতের নির্দেশ দিল মুম্বইয়ের আদালত। গত ডিসেম্বর মাসে বান্দ্রা-কুরলায় আন্না হাজারের আন্দোলনে যোগ দিয়ে তিনটি কার্টুন আঁকেন ওই কার্টুনিস্ট। এর জেরেই শনিবার তাঁকে আত্মসমর্পণ করতে হয়। কার্টুনিস্টকে গ্রেফতারের ঘটনায় আলোড়ন তৈরি হয়েছে দেশজুড়ে। প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মার্কেন্ডেয় কাটজুও কার্টুনিস্ট এঘটনার নিন্দায় সরব হয়েছেন।
গত ডিসেম্বরে মুম্বইয়ের বান্দ্রা-কুরলায় প্রবীণ সমাজকর্মী আন্না হাজারের ৩ দিনের অনশনে অংশ নেন অসীম ত্রবেদী। তখনই নিজের ওয়েবসাইটে  তিনটি কার্টুন প্রকাশ করেন তিনি। মাদার ইন্ডিয়া, অশোক চক্র এবং সংসদ ভবনের প্রতিকৃতি ব্যবহার করে কার্টুন আঁকেন অসীম ত্রিবেদী। সবকটিরই মুখ্য বিষয় ছিল দুর্নীতি বিরোধিতা। ওই ৩ টি কার্টুন নিয়েই বিতর্ক তৈরি হয়। পুলিসে  অভিযোগও দায়ের হয়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গত মাসে একটি জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয় তাঁর বিরুদ্ধে। এবং শনিবার আত্মসমর্পণ করতে হয় তাঁকে। 
 
অসীম ত্রিবেদীকে গ্রেফতারির ঘটনার তীব্র সমালোচনার করে প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মার্কেন্ডেয় কাটজু বলেছেন, "ওই কার্টুনিস্ট কোনও বেআইনি কাজ করেননি। গণতন্ত্রে অনেক কথা বলা হয়। কিছু সত্য এবং কিছু মিথ্যা।...কার্টুনিস্ট বা যে কোনও কাউকেই বিনা অপরাধে গ্রেফতার করা ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী একটি অপরাধ।...তাই যে পুলিস বা যাঁরা এ ধরনের বেআইনি গ্রেফতার করছেন, তাঁরা অস্বীকার করতে পারেন না যে তাঁদের ওপর রাজনৈতিক চাপ রয়েছে"।

আগামী বুধবার সিরিয়ায় পুরস্কার নিতে যাওয়ার কথা ছিল কার্টুনিস্ট অসীম ত্রিবেদীর। তবে আদালতের নির্দেশে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিস হেফাজতেই থাকতে হচ্ছে তাঁকে। তবে নিজের অবস্থানে অনড়ই রয়েছেন অসীম ত্রিবেদী। আদালতের বাইরে তিনি বলেন, প্রয়োজন হলে এ ধরনের কার্টুন ফের আঁকবেন। তাঁর বিরুদ্ধে মানহানি, ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪এ ধারা এবং তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে।
কয়েকমাস আগেই কার্টুন কাণ্ডের জেরে গ্রেফতার হতে হয়েছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্রকে। সেই ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল দেশজুড়ে। শনিবার আসীম ত্রিবেদীর আত্মসমর্পণের ঘটনা আরও সেই নিন্দনীয় ঘটনাকেই মনে করিয়ে দিল।