তৃতীয় ফ্রন্টের রাস্তা খুলে বামেদের সঙ্গে জোট নীতীশ কুমারের, লোকসভার আগে অপেক্ষায় রাখলেন কংগ্রেসকে

বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করে এবার দেশের রাজনীতিতে নতুন সমীকরনের জন্ম দিলেন নীতীশ কুমার। কংগ্রেস-বিজেপির সঙ্গে সমদূরত্ব বজায় রেখে কার্যত তৃতীয় ফ্রন্টের দিকেই পা বাড়ালেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে নরেন্দ্র মোদীর তীব্র বিরোধিতা করে এনডিএ ছাড়ার পর আরজেডি-র অবস্থান নিয়ে ক মাস ধরেই দেশের রাজনীতিতে নানা জল্পনা চলছিল।

Updated: Oct 22, 2013, 12:16 PM IST

বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করে এবার দেশের রাজনীতিতে নতুন সমীকরনের জন্ম দিলেন নীতীশ কুমার। কংগ্রেস-বিজেপির সঙ্গে সমদূরত্ব বজায় রেখে কার্যত তৃতীয় ফ্রন্টের দিকেই পা বাড়ালেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসাবে নরেন্দ্র মোদীর তীব্র বিরোধিতা করে এনডিএ ছাড়ার পর আরজেডি-র অবস্থান নিয়ে ক মাস ধরেই দেশের রাজনীতিতে নানা জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনায় জল ঢেলে নীতীশ তৃতীয় ফ্রন্টের রাস্তা খুলে দিলেন। ১৭ বছর বিজেপির সঙ্গে জোট বেঁধে লড়ার পর এই প্রথম ভোটর মুখে পড়তে চলেছে জেডিইউ।
রাজস্থানে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বাম দলগুলির সঙ্গে জোট গড়ার কথা ঘোষণা করলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। জেডিইউ সুপ্রিমো নীতীশ কুমার বলেন, কংগ্রেস শাসিত রাজস্থানে সিপিআইএম, সিপিআই ছাড়াও সমাজবাদী পার্টি ও জনতা দল (সেকুলার)-এর সঙ্গে জোট বেঁধে লড়বে তার দল।
বিজেপি শাসিত ছত্তিশগড়ে সংযুক্ত মোর্চার ব্যানারে লড়বে জেডিইউ।
নীতীশের দাবি মেনে বিহারকে স্পেশাল আর্থিক প্যাকেজ দেয় কেন্দ্র। কিন্তু এরপরেও নীতীশ কংগ্রেসের দিকে পা বাড়ালেন না। নীতীশের এনডিএ ত্যাগ, লালুপ্রসাদ যাদবের জেল যাত্রার মত ঘটনার পর বিহারের রাজনীতির অবস্থান নিয়ে সবাই এখন ধোঁয়াশায়। বিহারের ৪০ টি লোকসভা আসন রয়েছে। এই ৪০টি আসনের দিকে এখন সবার নজর।