কংগ্রেসের চোখে মোদী আজ `যমরাজ`

২০০২ গুজরাত দাঙ্গা। ২০১৩-র রাজনীতি। মাঝে দশটা বছর। এই নিরিখে গুজরাত মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে `যমরাজ` আখ্যা দিল কংগ্রেস। হিন্দুধর্ম মতে যমরাজের সঙ্গে গুজরাত রূপকারের সমীকরণ টেনে কটাক্ষের নতুন বিতর্কের জন্ম দিল গ্র্যান্ড পার্টি।

Updated: Apr 5, 2013, 09:43 PM IST

২০০২ গুজরাত দাঙ্গা। ২০১৩-র রাজনীতি। মাঝে দশটা বছর। এই নিরিখে গুজরাত মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে `যমরাজ` আখ্যা দিল কংগ্রেস। হিন্দুধর্ম মতে যমরাজের সঙ্গে গুজরাত রূপকারের সমীকরণ টেনে কটাক্ষের নতুন বিতর্কের জন্ম দিল গ্র্যান্ড পার্টি।
প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল করেছেন মোদী নিজে। গতকালের জোড়াল দাবির পর এই মোদীকে ঘিরে কংগ্রেসের এই মন্তব্যকে অত্যন্ত তাৎপর্যের সঙ্গেই দেখছে রাজনৈতিক মহল। সর্বভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের মুখপাত্র রশিদ আলভি এদিন সাংবাদিকদের বলেন, "রাহুলজি কাল প্রসঙ্গ এনেছেন এমন এক নায়কের যিনি ঘোড়ায় চড়ে আসছনে।" কিন্তু নরেন্দ্র মোদীর ক্ষেত্রে সেটা মহিষ হওয়া উচিৎ বলে মন্তব্য করছেন আলভি।
জাতীয় সমস্যার সমাধান ঘটাতে পারে ঘোড়ায় চড়া কোনও নেতা। রাহুল গান্ধীর ইঙ্গিত ছিল কার দিকে? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের খোলসা করতে গিয়েই কংগ্রেস নেতা আলভি মোদীকে হিন্দু ধর্মের মৃত্যুর দেবতা যমের সঙ্গে তুলনা করেছেন। প্রসঙ্গত ২০০৭-এ মোদীর নাম না করে কংগ্রেস সভানেত্রী তাঁকে `মৃত্যুর ব্যবসায়ী` বলে কটাক্ষ করেছিলেন। তাঁর খেসারত গুনতে হয়েছিল কংগ্রেসকেই। এই মন্তব্যই সেই বার গুজরাতে কংগ্রেসের ভরাডুবির কারণ হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল বলে মনে করেন অনেকেই। ফলত দিল্লির মসনদের লড়াইয়ে মোদী যখন প্রবল দাবিদার, ঠিক সেই সময় মোদীকে ঘিরে কংগ্রেস শিবিরের `যমরাজ` মন্তব্য নতুন বিতর্কের জন্ম দিল বলেই মনে করছেন রাজনীতির কারবারিরা।